কবে কোন দলের সাথে ইসির সংলাপ

12

বিডিসংবাদ ডেস্কঃ  একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ২৪ আগস্ট বৃহস্পতিবার থেকে পর্যায়ক্রমে নিবন্ধিত ৪০টি রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সংলাপে বসবে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

ইতোমধ্যে ১২টি দলের সঙ্গে সংলাপের সময়সূচি চূড়ান্ত করে তাদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে উল্লেখ করে ইসি সচিবালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বাসসকে বলেন, ইসিতে নিবন্ধিত ৪০টি রাজনৈতিক দলের মধ্যে ১২টি দলের সঙ্গে সংলাপের সময়সূচি চূড়ান্ত হয়েছে। এর মধ্যে ঈদের আগে ২৪ আগস্ট থেকে ৬টি দলের সঙ্গে সংলাপ হবে। ঈদের পরে ১০ সেপ্টেম্বর থেকে আবার সংলাপ শুরু হবে। ইতোমধ্যে এদের কাছে আমন্ত্রণপত্র পাঠানো হয়েছে।

তিনি বলেন, নিবন্ধনকৃত দলগুলোর মধ্য থেকে নিবন্ধনক্রম অনুযায়ী শেষের দিক থেকে পর্যায়ক্রমে দলগুলোকে সংলাপের জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। প্রতিদিন দুটি দলের সঙ্গে সংলাপ হবে। প্রতিটি দলের ১০ জন করে প্রতিনিধিকে সংলাপে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

সচিব জানান, ঈদের আগে নির্বাচন কমিশন ২৪ আগস্ট সকাল ১১টায় বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্ট (বিএনএফ), বিকেল ৩টায় বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক মুক্তিজোট (মুক্তিজোট), ২৮ আগস্ট সকাল ১১টায় বাংলাদেশ মুসলীম লীগ-বিএমএল, বিকেল ৩ টায় খেলাফত মজলিশ, ৩০ আগস্ট সকাল ১১ টায় বাংলাদেশ বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি, বিকেল ৩ টায় জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি-জাগপার সঙ্গে বসবে।
তিনি জানান, ঈদের পর ১০ সেপ্টেম্বর সকালে ১১টায় বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট, বিকেল ৩টায় ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ, ১২ সেপ্টেম্বর সকাল ১১টায় বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস, বিকেল ৩টায় ইসলামী ঐক্যজোট, ১৪ সেপ্টেম্বর সকাল ১১টায় কল্যাণ পার্টি ও বিকেল ৩টায় ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ এর সঙ্গে সংলাপে বসবে কমিশন।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে গত ৩১ জুলাই সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের সঙ্গে সংলাপের মধ্য দিয়ে নির্বাচন বিশেষজ্ঞসহ অংশীজনদের সঙ্গে ধারাবাহিক সংলাপ শুরু করে নির্বাচন কমিশন। সুশীল সমাজের ৫৯ জনকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। পরে ১৬ ও ১৭ আগস্ট গণমাধ্যম প্রতিনিধিদের সঙ্গে কমিশন সংলাপে বসে। এই দুই দিনে অর্ধশত গণমাধ্যম প্রতিনিধির কাছ থেকে কমিশন বিভিন্ন পরামর্শ গ্রহণ করে।

হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব ও সুশীল সমাজের কাছ থেকে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা এবং কমিশনের কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়ন বিষয়ে অনেক গুরুত্বপূর্ণ পরামর্শ পাওয়া গেছে। নির্বাচনী ব্যবস্থাপনা শক্তিশালীকরণে এসব পরামর্শ কমিশনকে সহায়তা করবে।
তিনি বলেন, কমিশনের অন্যতম অংশীজন রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে ২৪ আগস্ট থেকে সংলাপ শুরু হচ্ছে। সুশীল সমাজ ও গণমাধ্যম প্রতিনিধিদের কাছ থেকে প্রাপ্ত পরামর্শ ও সুপারিশগুলো দলগুলোর সামনে উপস্থাপন করা হবে।

সূত্রঃ বাসস