ক্যালিফোর্নিয়ার প্রাণঘাতী দাবানলে নিহত অন্তত ৪০

13

বিডিসংবাদ ডেস্কঃ  যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের রেকর্ডকৃত ইতিহাসে সবচেয়ে প্রাণঘাতী দাবানলে মৃতের সংখ্যা অন্তত ৪০ জনে দাঁড়িয়েছে, কয়েকশত লোক এখনও নিখোঁজ রয়েছেন।

বাতাসে দ্রুত ছড়িয়ে পড়া দাবানলের কারণে শনিবার আরো কয়েক হাজার স্থানীয় বাসিন্দা ঘরবাড়ি ছেড়ে নিরাপদ আশ্রয়ে চলে যেতে বাধ্য হয়েছেন।

স্যান ফ্রান্সিসকো শহরের উত্তর দিকে প্রায় ৮৬৫ বর্গকিলোমিটার এলাকা আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। সাতদিনেরও বেশি সময় ধরে দাবানলের ১৬টি প্রধান ধারার সঙ্গে ১০ হাজারেরও বেশি দমকল কর্মী এয়ার ট্যাঙ্কার ও হেলিকপ্টারের সহায়তা নিয়ে লড়াই করে যাচ্ছেন।

দাবানলে এ পর্যন্ত ৪০ জনের মৃত্যু নিশ্চিত করা হয়েছে, এদেরমধ্যে ২২ জন মারা গেছেন সোনোমা কাউন্টিতে। এই কাউন্টির ২৩৫ জন বাসিন্দা এখনও নিখোঁজ রয়েছেন।

শনিবার স্যান ফ্রান্সিসকোর ৮০ কিলোমিটার উত্তরে সান্তা রোসা শহর থেকে তিন হাজার বাসিন্দাকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। এ পর্যন্ত দাবানল কবলিত এলাকাগুলোর প্রায় এক লাখ মানুষ ঘরবাড়ি ছেড়ে নিরাপদ আশ্রয়ে চলে যেতে বাধ্য হয়েছেন।

আগুনে পুড়ে এ পর্যন্ত ৫ হাজার ৭০০ স্থাপনা ভস্মীভূত হয়েছে। বাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পুড়ে ছাই হয়ে গেছ। চলতি দাবানলে নিহতের সংখ্যা ১৯৩৩ সালে লস অ্যাঞ্জেলসের গ্রিফিথ পার্কের দাবানলে নিহত ২৯ সংখ্যাটিকে ছাড়িয়ে অনেকদূর এগিয়ে গেছে।

“সত্যি ক্যালিফোর্নিয়া যেসব ভয়াবহ শোচনীয় ঘটনার মুখোমুখি হয়েছে এটি সেগুলোর মধ্যে একটি। ধ্বংসের পরিমাণ অবিশ্বাস্য। এটি এমন এক আতঙ্ক যা কেউ কখনো কল্পনাও করতে পারবে না,” সান্তা রোসা শহর পরিদর্শনের পর বলেছেন ক্যালিফোর্নিয়ার গভর্নর জেরি ব্রাউন।

সান্তা রোসা শহরের এখনও অক্ষত আছে এমন এক বাড়ির মালিক মলি কুরল্যান্ড বলেন, “যারা ঘরবাড়ি হারায়নি সেইসব লোকজনও ভীষণ অনিশ্চয়তা ও উদ্বেগের মধ্যে আছে। যে এলাকায় আমরা বাজার-সদাই করতাম সেখানে এখন কিছুই নেই। আমার প্রিয় রেস্তোরাঁটিও নেই।”

ভয়াবহ এই দাবানল ঠেকাতে ক্যালিফোর্নিয়ার দমকল কর্মীদের সঙ্গে ওরেগন, ওয়াশিংটন, অ্যারিজোনা, কলোরাডো ও নেভাদা অঙ্গরাজ্যের দমকল কর্মীরাও যোগ দিয়েছেন।