ঝিনাইদহে নবম শ্রেণীর ছাত্রীকে জোর করে অপহরনের চেষ্টা, অভিযুক্তদের গ্রেফতারের দাবিতে বিক্ষোভ !

28

ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ
ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় আদুরী (১৪) নামে নবম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে জোর করে কেরোসিনের সঙ্গে নেশা দ্রব্য খাইয়ে ব্যাপক মারধর করেছে তিন বখাটে যুবক। গুরুতর আহতাবস্থায় তাকে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। সে পৌরসভার আড়পাড়া গ্রামের জাহাঙ্গীর হোসেনের মেয়ে এবং স্থানীয় সলিমুননেছা বালিকা বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্রী।

এদিকে বখাটের হাতে ছাত্রী লঞ্ছিত হওয়া খবর পেয়ে হাসপাতালে ছুটে গেছেন ঝিনাইদহ ৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ছাদেকুর রহমান, ছাত্রলীগের উপজেলা সভাপতি মিঠু মালিতা। তারা এই ন্যাক্কারজনক ঘটনার সঙ্গ জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শস্তির দাবি জানান। এ ঘটনায় বখাটেদের গ্রেফতারের দাবিতে রাতে শহরে মিছিল করেছে ছাত্রলীগ।

কিশোরীর বাবা জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, দীর্ঘদিন যাবত তার মেয়েকে আড়পাড়া এলাকার মিল্টনের ছেলে হৃদয়, বদর উদ্দিনের ছেলে শিমুল ও আয়াতুল্লাহ নামের তিনজন বখাটে প্রতিদিন তার মেয়েকে উত্ত্যাক্ত করতো। রোববার সন্ধ্যার সে প্রাইভেট পড়ে বাসায় আসার পথে পৌরসভার গোরস্থান এলাকায় তার মেয়ের গতিরোধ করে বখাটেরা। এরপর তার মুখে জোর করে নেশাদ্রব্য দিয়ে তাকে ব্যাপক মারধর করে।

পরে এলাকাবাসী এগিয়ে এলে বখাটেরা পালিয়ে যায়। অচেতন অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে কালীগঞ্জ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আদুরীর চিকিৎসায় সহযোগিতার আশ্বাস দেয়া হয়েছে। ওই তিন বখাটেদের গ্রেফতারের দাবিতে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মিঠু মালিতার নেতৃত্বে শহরে একটি মিছিল বের করা হয়েছে।

কালীগঞ্জ হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা: এম এ কাফি জানান, সন্ধ্যার পর কিশোরীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে কেরোসিনের সাথে নেশাজাতীয় কোন দ্রব্য মিশিয়ে তাকে খাওয়ানো হয়েছে। তবে সে এখন আশঙ্কামুক্ত।

কালগীঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ছাদেকুর রহমান জানান, বখাটেদের গ্রেফতারের জন্য পুলিশকে বলা হয়েছে। তিনি নিজেও হাসপাতালে গিয়ে কিশোরীর চিকিৎসার খোঁজখবর নিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন। কালীগঞ্জ থানার এসআই বিশ্বজিত কুমার জানান, তারা বখাটেদের গ্রেফতারের জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা চালানো হচ্ছে।