যদি পারতাম

161
কবি-মল্লিকা পারভীন

যখন তোমার আকাশে কালো মেঘ জমে
তখন আমার খুব ইচ্ছে করে
পৃথিবীর সব কিছু ভুলে
সুখে রাখবো তোমাকে কি করে।
একদম নিরুপায় হয়ে নিজেকে
দিশেহারা করে আবারও খুঁজি
এইটা বলে ঐইটা শুনলে কোন পথে?
বড় আশা নিয়ে ভাবি কিসে হবে খুশি? 
যদি চাও ঐ আকাশের চাঁদটি
এনে দেব সেটি তাও ভাবি
তোমার মন খারাপের প্রতিটি মুহুর্ত্ব ঘিরে
যোনো আমি আছি সব কিছু জুড়ে
যদি পারতাম তোমার মনের সকল দুঃখকে
যে কিছুর বিনিময়েই অবসান ঘটাতে
তাহলে আমি একখন্ডও দেরী না করে
নিমিষেই সেটি করে তোমার মনটা দিতাম ভরিয়ে
আমি চাই না তোমার ঐ মলিন মুখটি দেখতে
কারন সেটি যে আমি একদমই পারি না সইতে !
যেনো সাধ মেটে না
যখনি তোমায় দেখতে ইচ্ছা করে
তখনি নজর রাখি তোমার ছবি পানে
কি নিখুঁত করে বার বার শত বার
দেখতে থাকি তোমার সেই মুখ
যোনো তা জুড়িয়ে আছে আমার 
সমস্ত ভালো থাকা ভালোলাগার সুখ।
কত মায়া আর মমতা খুঁজে পাই
বহু বার সেই মমতার বন্ধনে হারিয়ে যাই
চেয়ে চেয়ে দেখি কত যে আপন তুমি
মনে হয় কখনো নীল আকাশ ছুঁই
কিংবা স্রোতবান নদীতে নৌকার পাল তুলে
বাতাসের সাথে মিতালী করে
ছবি পানে চেয়ে চুপিসারে বলি 
চুপটি কেনো? কথা বলো একটু খানি !
তোমাকে দেখার সাধ কখনো কোন দিন
মিটবে না এটুকুও জানি।

বিডিসংবাদ/এএইচএস