পরিবহন ধর্মঘট অব্যাহত রাখার ঘোষণা

20

দাবি না মানা পর্যন্ত ধর্মঘট চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন আন্দোলনরত পরিবহন শ্রমিকরা।

মঙ্গলবার বিকালে গাবতলীতে এক সমাবেশে বাংলাদেশ আন্তজেলা ট্রাক চালক ইউনিয়নের সভাপতি তাজুল ইসলাম এ ঘোষণা দেন।

বিষয়টি নিয়ে নৌ-পরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খানকে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনার উদ্যোগ নিতে শ্রমিকদের পক্ষ থেকে আহ্বান জানান তিনি।

এ সময় তাজুল ইসলাম বলেন, ‘সংবাদপত্র, অ্যাম্বুলেন্সের মতো জরুরি গাড়ি ছাড়া কোনো রকম গাড়ি চলবে না, চালাতে দেব না।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের নেতা শাজাহান খান কেবিনেট মন্ত্রী। তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বললে এটা দুই মিনিটের ব্যাপার।’

তাজুল ইসলাম বলেন, ‘এ আইন প্রত্যাহার করে শ্রমিকদের জেল থেকে বের করব। আমাদের দাবি-দাওয়া সম্পূর্ণ মেনে নিলে শ্রমিকেরা গাড়ি চালাবেন।’

প্রসঙ্গত, ২০১১ সালের ১৩ আগস্ট ঢাকা-মানিকগঞ্জ মহসড়কে জোকা এলাকায় চুয়াডাঙ্গা ডিলাক্সের একটি বাসের সঙ্গে মাইক্রোবাসের সংঘর্ষে চলচ্চিত্রকার তারেক মাসুদ ও সাংবাদিক মিশুক মুনীরসহ পাঁচজন নিহত হন।

এ ঘটনায় দায়ের করা মামলায় মানিকগঞ্জ অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত চালক জামির হোসেনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দেন।

এ রায়ের প্রতিবাদে রোববার সকাল ৬টা থেকে খুলনা বিভাগের ১০ জেলায় ধর্মঘটের ডাক দেয়া হয়। এর পর মঙ্গলবার কোনো ধরনের পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই সারা দেশে দূরপাল্লার বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে পরিবহন শ্রমিকরা। এতে চরম দুর্ভোগে পড়ে সাধারণ মানুষ।