নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের পাশে ব্রাজিল প্রবাসী বাঙালীরা

149
নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের পাশে ব্রাজিল প্রবাসী বাঙালীরা

সাইফুল্লাহ আল মামুন, ব্রাজিল প্রতিবেদকঃ মিয়ানমার বার্মাদের হাতে নির্যাতনের স্বীকার রাখাইনের মুসলিম রোহিঙ্গারা। নিজ ভূমি ছেড়ে চলে এসেছে বাংলাদেশের সীমান্তে। অসহায় এই রোহিঙ্গাদের সাহায্যে জন্য মানবতার খাতিরে ছুটে এসেছে অনেক দেশ। ত্রান আর সহযোগীতায় বিশ্বের অনান্য দেশ যাই করুক সবথেকে বড় অবদান বাংলাদেশের তা বলা অনীস্বীকার্য, কারণ বাংলাদেশ ত্রানের পাশাপাশি নিজ ভূমিতে সাময়িক বাসস্থানের ব্যবস্থা করেছে ।

রোহিঙ্গাদের এই সমস্যা শুধুমাত্র বাংলাদেশের সরকার, বিভিন্ন সংগঠন, ফাউন্ডেশন নয় দেশের বাইরে থেকে দেশের রেমিটেন্স বৃদ্ধিতে যারা বড় ভূমিকা পালন করে প্রবাসীরা তারাও নিজ উদ্যেগে এগিয়ে এসেছে।

সম্প্রতি ব্রাজিল অবস্থানরত প্রবাসী বাংলাদেশীরা অসহায় নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের সাহায্যের জন্য এগিয়ে এসেছে। ব্রাজিলে বিপুল সংখ্যক বাঙালীরা জীবনের তাগীদে সেখানে ব্যবসা-বাণিজ্যে বা চাকুরী করছে। রোহিঙ্গাদের এই মানবেতর জীবন যাপন দেখে প্রবাসী ভাই বোনেরা সকলেই হাতে হাত মিলিয়ে রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয়।

ব্রাজিলে বসবাসরত প্রবাসী বাঙালী ব্যবসায়ী তাজমহল রেস্টুরেন্ট এর মালিক সাইফুল ইসলাম,ব্যবসায়ী দেলোয়ার হোসেন, হোসনে মোবারক এবং মোহাম্মদ কাওসার এর যৌথ উদ্যেগে রোহিঙ্গাদের ত্রান ও সহযোগিতার জন্য সকলের সম্মতিতে ব্রাজিলে প্রাবসীদের কাছ থেকে সাহায্যে নেওয়া হয়। তারা বাঙালীদের কাছে রোহিঙ্গাদের অসহায় অবস্থান তুলে ধরেন এবং তাদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য প্রবাসীদের আহবান করেন। এই আহবানে বাঙালীদের অনেকেই সাড়া দেন এবং অর্থ প্রদান করেন। একটি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে প্রত্যাশার থেকেও বেশী ত্রানের অর্থ সংগ্রহ করা হয়।

পরবর্তীতে সংগ্রহকৃত ত্রানের এই অর্থ  রোহিঙ্গাদের মাঝে বিলিয়ে দিতে ব্রাজিল প্রবাসী সাইফুল ইসলাম এবং দেলোয়ার হোসেনের তত্বাবধানে বাংলাদেশে একটি টিম গঠন করা হয় যার প্রতিপাদ্য ছিল “মানবতার কল্যানে আমরা ব্রাজিল প্রবাসী বাংলাদেশী”। এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে গঠিত দলটি সংগ্রকৃত ত্রানের অর্থ রোহিঙ্গাদের মাঝে বিলিয়ে দেয়।

রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়নোর দৃঢ় মনোবল নিয়ে এবং সহযোগিতার প্রথম পদক্ষেপ সফল হওয়ায় দেলোয়ার হোসেন সকল ব্রাজিল প্রবাসী ভাইদের অভিনন্দন জানান।

তিনি বলেন– “ব্রাজিল প্রবাসী ভাই বন্ধু সকলের উদ্দেশ্য বলতে চাই,আমাদের এই সংস্থার কাজ হল সকল মানুষ এর বিপদে আপদে পাশে থাকার জন্য আপ্রান চেষ্টা করে যাওয়া,আমদের এই সংস্থার মাধ্যমে দেশে বিদেশে যেকেউ বিপদে পরলে আমরা সাহায্য হাত বাড়িয়ে দিবো,দশে মিলে করি কাজ হারি জিতি নাহে লাজ,একতা বদ্ধতা পারে সুন্দর একটা সমাজ উপহার দিতে,সব শেষে বলবো যারা রোহিঙ্গা ভাই দের জন্য সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন তাদেরকে আন্তরিক মোবারক বাদ জানাই,আর যারা আমাদের হয়ে বাংলাদেশ এত কষ্ট করে ত্রাণ গুলো বিতরন করছে তাদের কে ব্রাজিল প্রবাসী বাংলাদেশীদের পক্ষথেকে আন্তরিক  অভিনন্দন জানাই।”

এছাড়া যতদিন রোহিঙ্গাদের সমস্যার পরিবর্তন এবং তাদের অধিকার আদায় না হওয়া পর্যন্ত তাদের সাহায্যে ও সহযোগিতা এবং ত্রান বিতরন অব্যাহত থাকবে বলে ঐক্যবদ্ধতা প্রকাশ করেছে ব্রাজিল প্রবাসী বাংলাদেশিরা।