“অন্ধকারের গান”

202
কবি - হাসিনা মরিয়ম

আমিও আমার পৃথিবী-

তোমার মাঝেই সমর্পিত

এ যেন দেবতার বেদীতে পূজোর অর্ঘ্য

আর তোমার পৃথিবী-

সে কোথায় কোন সূদুরে...

তোমার পৃথিবীতে প্রবেশের কোন অনূমতি নেই আমার

আমি আছি তোমার পৃথিবীর আড়ালে-

তোমার জগতে, তোমার ব্যস্ততায় যখন-

ক্লান্ত অবসন্ন তুমি-তখন

ফিরে আসো আমার উত্তপ্ত বুকের মাঝে

আমি যেন সঞ্চিবনী সুধা,

তোমাকে আকন্ঠ পান করাব-সরাব মদির নির্যাস

এতে তোমার ক্লান্তি দূর হবে-

তুমি আবার ফিরে যাবে তোমার পৃথিবীতে-

আবার সেই ব্যস্ততা- সকাল,দুপুর,রাত্রি

আবার ক্লান্তি-অবসন্নতা-তারপর আমি-

আমি যেন তোমার সজিবতার নিয়ামক-

তারপর আবার চলে যাওয়া-

যাওয়া আর আসার মাঝে-

আমি কোথায়...

তবেকি আমি মৃত্তিকার ফাটল

থেকে বেরিয়ে আসা

বুনোফুল...?

নাকি-

সবুজ ধানের ক্ষেতের

এক মুঠো হিমেল হাওয়া-

নদীর পাড় ভাঙ্গার মতো, আমি

আমার মাঝে ভাঙ্গনের শব্দ শুনি

হয়তো একদিন তুমি হাত বাড়াবে

আমার দিকে-

হয়তো আলিঙ্গনের জন্য দুহাত প্রসারিত করবে

তোমার উষ্ণ ঠোঁট তিরতির করে বলতে চাইবে

না বলা কথা-

হয়তো সেদিন অনেক দেরী হয়ে যাবে

আমার কাছে ফিরে আসার সকল পথ তোমার

বন্ধ হয়ে যাবে...

তারপর ও তোমাকে মিনতি আমার-

আমার বুকের উপর তোমার হাতের-

আলতো পরশ বুলিয়ে দিও-

যদি কখনও নিঃশ্বাস রুদ্ধ হইয়ে আসে...।।

বিডিসংবাদ/এএইচএস