রাজধানীতে মেডিকেল শিক্ষার্থীসহ চকোরিয়া-টাঙ্গাইলে নিহত ৭

82

রাজধানীতে মেডিকেল শিক্ষার্থী, টাঙ্গাইলে ট্রাক-সিএনজি সংঘর্ষে মা-ছেলে এবং চকোরিয়ায় দুইবোনসহ সাতজন নিহত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

জানা গেছে রাজধানীর নয়াবাজারে সড়ক দুর্ঘটনায় সাদিয়া হাসান (২২) নামে এক মেডিক্যাল শিক্ষার্থী নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন ওই শিক্ষার্থীর মা শাহীন সুলতানা জলি (৪৫)। আজ শনিবার সকালের দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত মেডিকেল শিক্ষার্থী সাদিয়া। ফটো : সংগৃহীত।

নিহত সাদিয়া হাসান ন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ৫ম বর্ষের শিক্ষার্থী। ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ বাচ্চু মিয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

অপরদিকে টাঙ্গাইল সদর উপজেলার আশেকপুর বাইপাস এলাকায় ট্রাক-সিএনজির সংঘর্ষে মা ও ছেলে নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন কমপক্ষে ৪ জন। আজ শনিবার দুপুরে এই দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন, মা সাফিয়া আক্তার (২১) ও ছেলে সাখাওয়াত (১)। তাদের বাড়ি সদর উপজেলার করটিয়া এলাকায়। এলেঙ্গা ফাড়ির এসআই শাহ আলম জানান, হতাহতরা সিএনজি চালিত অটোরিক্সা যোগে টাঙ্গাইল থেকে করটিয়া যাচ্ছিলেন। ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের আশেকপুর বাইপাস এলাকায় পৌঁছালে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা দিনাজপুরগামী তেলভর্তি একটি ট্রাকের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই মা সাফিয়া আক্তার (২১) ও ছেলে শিশু সাখাওয়াত (১) নিহত হয়। এ ঘটনায় পুলিশ অভিযুক্ত ট্রাক ও চালক সোহাগকে আটক করেছে বলেও জানান তিনি।

এদিকে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের চকরিয়ায় পর্যটকবাহী মাইক্রোবাস উল্টে দুই বোনসহ ৪ জন নিহত হয়েছেন। এ সময় শিশুসহ ৯জন আহত হয়েছেন। আজ শনিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে চকরিয়া উপজেলার উত্তর হারবাং গয়ালমারা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন, ঢাকার রায়েরবাগ এলাকার আসাদুজ্জামান বাপ্পির স্ত্রী কুলছুমা আক্তার সুমি (২৫), তার বোন বগুড়ার মান্দা এলাকার মো.জিকুর স্ত্রী আয়েশা আক্তার শিল্পী (২০), ঢাকার দক্ষিণ বাসাবো সবুজবাগ এলাকার মো.কিবরিয়া (৪০) ও একই এলাকার আয়াত আলীর ছেলে মাইক্রোবাস চালক আমির হোসেন (৩০)। আহতরা হলেন, মো.বাপ্পি (২৮), কাজল (৩০), মো.বাবু (২২), সজল (২৮), জহির (৩২), ইব্রাহিম হোসেন আপন (২), মো.সজল (১৯), খাদিজা বেগম (২৭) ও সাথি (২৫)।  দুর্ঘটনা কবলিত গাড়িটি উদ্ধার করা হয়েছে।