ইসরাইলে ভোট গণনার সময় ৪ ফিলিস্তিনিকে হত্যা

বিডিসংবাদ অনলাইন ডেস্কঃ

ইসরাইলের প্রতিরক্ষা বাহিনী বৃহস্পতিবার পৃথক ঘটনায় অন্তত চার ফিলিস্তিনিকে হত্যা করেছে। যার মধ্যে একজনের বিরুদ্ধে পূর্ব জেরুসালেমে পুলিশ অফিসারকে ছুরিকাঘাত করার অভিযোগ রয়েছে এবং বাকি তিনজন অধিকৃত পশ্চিম তীরে ইসরাইলি অভিযানের সময় নিহত হন।

শুক্রবার দিনের শুরুতে ফিলিস্তিন থেকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রকেট হামলার জবাবে ইসরাইলি বিমান গাজা উপত্যকায় বেশ কয়েকটি লক্ষ্যবস্তুতে হামলা চালায়। গত আগস্টে ইসরাইল ও ইসলামিক জিহাদ সশস্ত্র গোষ্ঠীর মধ্যে যুদ্ধবিরতি শেষ হওয়ার পর প্রথম আন্তঃসীমান্ত সহিংসতা হিসেবে এই রকেট হামলা ও ইসরাইলি বিমান হামলা চালানো হলো।

ইসরাইল চলতি সপ্তাহে অনুষ্ঠিত জাতীয় নির্বাচনে ভোট গণনা শেষ করার সাথে সাথে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে। সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু ও তার উগ্র ডানপন্থী মিত্ররা ইসরাইলের সংসদে স্বস্তি জাগানিয়া সংখ্যাগরিষ্ঠ আসন লাভ করে।

ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্যানুসারে, পশ্চিম তীরে সশস্ত্র ঘাঁটি জেনিন শরণার্থী শিবিরে কাজ করা অন্তত দুই ফিলিস্তিনিকে হত্যা করেছে ইসরাইলি সেনারা।

ফিলিস্তিনি সশস্ত্র সংগঠন ইসলামিক জিহাদ জানিয়েছে, নিহতদের মধ্যে একজন স্থানীয় কমান্ডার রয়েছেন।

স্থানীয়রা জানান, সপ্তাহ শেষে তার বিয়ের তারিখ ধার্য ছিল। তিনি যখন গোশত বিক্রেতার কাছ থেকে গোশত কিনছিলেন সে সময় তাকে হত্যা করা হয়।

সেনাবাহিনী বলছে, ফারুক সালামেহ গত মে মাসে একজন পুলিশ কর্মকর্তাকে হত্যাসহ ইসরাইলি নিরাপত্তা বাহিনীর ওপর বেশ কয়েকটি বন্দুক হামলার জন্য অভিযুক্ত ছিল।

তারা আরো বলছে, বন্দুকযুদ্ধ শুরু হলে সালামেহ পালিয়ে যান ও সে সময় তিনি সৈন্যদের প্রতি বন্ধুক তাক করলে তাকে গুলি করা হয় এবং এতে তিনি মারা যান।

বৃহস্পতিবার দিনের শেষ দিকে গাজা সশস্ত্র গোষ্ঠী দক্ষিণ ইসরাইলে একটি রকেট নিক্ষেপ করে। সেনাবাহিনী বলেছে, রকেটটি আটকানো হয়েছিল এবং অন্য তিনটি উৎক্ষেপণ প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে। এগুলো গাজার ভিতরে বিস্ফোরিত হয়েছে। তাৎক্ষণিকভাবে এর কোনো দায় স্বীকার করা হয়নি। তবে অতীতে ইসলামিক জিহাদ তার সদস্যদের হত্যার প্রতিক্রিয়ায় রকেট নিক্ষেপ করেছে।

জবাবে ইসরাইলি সামরিক বাহিনী বলছে, এটি গাজার হামাস শাসকদের দ্বারা রকেট তৈরির সুবিধা হিসেবে ব্যবহৃত একটি ভূগর্ভস্থ স্থানকে লক্ষ্য করে। এতে বলা হয়েছে, বিমান হামলা হামাসের রকেট সক্ষমতাকে ‘উল্লেখযোগ্যভাবে বাধাগ্রস্ত করবে’। এটি গাজা থেকে উদ্ভূত হামলার জন্য সশস্ত্র গোষ্ঠীকেও দায়ী করেছে। হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি।

এর আগে বৃহস্পতিবার ফিলিস্তিনি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, অধিকৃত পশ্চিম তীরে ইসরাইলের ছোঁড়া গুলিতে একজন ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। ইসরাইলি পুলিশ বলেছে, অঞ্চলটিতে একটি অভিযানের সময় এটি ঘটেছিল এবং অভিযোগ করা হয়েছে যে লোকটি বাহিনীকে লক্ষ্য করে একটি ফায়ার বোমা নিক্ষেপ করেছিল।

আরেকটি ঘটনায় বৃহস্পতিবার জেরুসালেমের পুরাতন নগরীতে এক ফিলিস্তিনি এক পুলিশ অফিসারকে ছুরিকাঘাত করেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। অফিসাররা হামলাকারীর ওপর গুলি চালালে তিনি নিহত হন। এতে ওই কর্মকর্তা সামান্য আহত হন।

জাতীয় নির্বাচনের পর ইসরাইলে রাজনৈতিক পরিবর্তনের সময় এই সহিংসতা ঘটেছে। নেতানিয়াহু চরমপন্থী আইনপ্রণেতা ইতামার বেন-গভিরসহ ডানপন্থী মিত্রদের নিয়ে গঠিত জোট সরকারের ক্ষমতায় ফিরে আসবেন। যারা ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় বলেছিলেন, ইসরাইল শিগগিরই আক্রমণকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেবে।

সূত্র : এপি/ইউএনবি

বিডিসংবাদ/এএইচএস