কিংবদন্তি নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ জামিরুল ইসলাম মিয়া জামিল এর ৭৫ তম জন্মদিন উপলক্ষে প্যারিসে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

ফ্রান্স ব্যুরোঃ

কিংবদন্তি রাজনীতিক সংগ্রামী জননেতা শুভ জন্মদিন জাতির বীর সন্তান, ফ্রান্স আওয়ামী লীগের সাবেক উপদেষ্টা , বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংহতি পরিষদ , ফ্রান্স শাখার সভাপতি, সর্ব ইউরোপীয় মুক্তিযোদ্ধা সংসদ এর সহ-সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ জামিরুল ইসলাম মিয়া জামিল কে মুক্তিযোদ্ধা সংহতি পরিষদ ফ্রান্স শাখা ও ASCIBF- ফ্রেঞ্চ বাংলা স্কুলের পরিবারের পক্ষ থেকে শুভ জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানান।


মহান মুক্তিযুদ্ধের রাষ্ট্রীয় আদর্শ– গণতন্ত্র, বাঙালি জাতীয়তাবাদ, ধর্মনিরপেক্ষতা ও সমাজতন্ত্র বাস্তবায়নে নিবেদিত প্রাণনেতার মূলমন্ত্র ‘অসত্যের কাছে কভু নত নহে শির, ভয়ে কাঁপে কাপুরুষ লড়ে যায় বীর।’ রাজনৈতিক জীবনে ব্যাপক সংগ্রামও বিস্তর বন্ধুর পথ তাকে অতিক্রম করতে হয়েছে।


সংগ্রামী জীবনে সততা, মেধা, কর্তব্যনিষ্ঠা ও বাগ্মীতার ফলে সব প্রতিকূলতা অতিক্রম করে জনকল্যাণমূলক রাজনীতির অভীষ্ট লক্ষ্যে তিনি এগিয়ে চলেছেন। অনেক রাজনীতিকরা স্বৈরশাসকের বেচাকেনার সামগ্রীতে পরিণত হয়। প্রলোভন ও হুমকির মুখে বহু আদর্শবাদী আদর্শচ্যুত হলেও তিনি ছিলেন নির্ভীক, ব্যতিক্রম এবং অনন্য। অন্যায়ের কাছে মাথা নত করেননি কখনো। জন্মদিনে উনার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করছেন মুক্তিযোদ্ধা সংহতি পরিষদ ও ফ্রেঞ্চ বাংলা স্কুলের পরিবার।

ফ্রান্সে অবস্থিত ASCIBF- ফ্রেঞ্চ বাংলা স্কুলের স্থায়ী কার্যালয়ে অত্যন্ত জাঁকজমকপূর্ণভাবে গতকাল রবিবার সন্ধ্যায় ৭৫তম জন্মদিনের অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।
এ সময় তাঁর সহধর্মিণী স্কুলের পরিচালক ফাতেমা খাতুন, মুক্তিযোদ্ধারা, প্যারিস বাংলা প্রেস ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা ও ION টিভির ইউরোপ প্রধান এনায়েত হোসেন সোহেল , বন্ধু-শুভান্যুধায়ী, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্মরা, মুক্তিযোদ্ধা সংহতি পরিষদের সকল সদস্য ও অভিভাবকবৃন্দ এবং ফ্রেঞ্চ বাংলা স্কুলের সকল ছাত্রছাত্রী ও স্থানীয় প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। সবার উপস্থিতিতে বীর মুক্তিযোদ্ধা জামিল মিয়া শিশুসহ সকলকে সঙ্গে নিয়ে অনুষ্ঠানের প্রথম পর্বে জন্মদিনের কেক কাটেন।


ব্যক্তি জীবনে বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ জামিরুল ইসলাম মিয়া জামিল একজন সামাজিক ও মানবিক গুনসম্পন্ন মানুষ। রাজনীতির পাশাপাশি তাঁকে বিভিন্ন সময় মানবিক কর্মকাণ্ডে অংশ নিতে দেখা যায়।


বাংলাদেশের কৃষ্টি কালচার সংস্কৃতি নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে ফ্রান্সে প্রতিষ্ঠা করেছেন ফ্রেঞ্চ বাংলা স্কুল। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়ন করাই তার একমাত্র লক্ষ্য।
মুক্তিযোদ্ধা সংহতি পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মুনির হোসেন এর পরিচালনায় দ্বিতীয় পর্বে বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ জামিল কে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানানোর পাশাপাশি মুক্তিযোদ্ধা সংহতি পরিষদ ও ফ্রেঞ্চ বাংলা স্কুলের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করেন সহসভাপতি আশরাফুল ইসলাম সহ-সভাপতি ও ASCIBF- ফ্রেঞ্চ বাংলা স্কুলের পরিচালক ফাতেমা খাতুন, দেব দুলাল চৌধুরী, বাবু বলরাম রাজ, বাবলু দাস অজয়,কার্যনির্বাহী কমিটির অন্যতম ( ১ নং) সদস্য সুমা দাস, বাদল পাল প্রশান্ত, জয়নুল আবেদীন, অভিজিৎ ঘোষ মুকুল, সাংবাদিক রাসেল আহমেদ,সাংগঠনিক সম্পাদক নাজমুল হক শিমু , সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ুন কবির, প্রচার সম্পাদক মিঠু নন্দী ও আকাশ বড়ুয়া, ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক ইয়াছিন হক, মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা নুরুন নাহার নিপা, সাংস্কৃতিক ও শিশু বিষয়ক সম্পাদক মোঃ মতিউর রহমান, সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক তানিয়া নাজনীন, স্বাস্হ্য বিষয়ক সম্পাদক ফরহাদ হোসেন, ছাত্র প্রতিনিধি সীমান্ত রায়। আরও উপস্থিত ছিলেন সম্মানিত সদস্য সম্রাট খান,সাথী রানী মজুমদার, মোঃ মামুন মিয়া, এস এম মোহন আহমেদ, নাজমুল সরদার, আতাউর রহমান সাগর দেব সহ আরো অনেকে।


বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ জামিরুল ইসলাম মিয়ার বক্তব্যে স্মরণ করেন স্বাধীন বাংলার স্থপতি হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, জাতীয় চার নেতা সহ সকল শহীদদের। মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি চারণের পাশাপাশি ফ্রান্সে অবস্থিত একমাত্র বাংলা স্কুলের কার্যক্রমকে আরো গতিশীল করার জন্য প্রবাসী বাংলাদেশীদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান এবং সকল অতিথি বৃন্দ, স্কুলের সকল অভিভাবক বৃন্দ কে ধন্যবাদ জানিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপনী করেন।