গত বছরের ফর্ম বিপিএলে ধরে রাখতে চান শরিফুল

গেল বছরের দুর্দান্ত ফর্ম আগামী ১৯ জানুয়ারী থেকে শুরু হতে যাওয়া বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ধরে রেখে বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় পেসার হিসাবে নিজের অবস্থানকে আরও সুসংহত করতে চান শরিফুল ইসলাম।
টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপকে সামনে রেখে এ বছর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ব্যস্ত সূচি আছে বাংলাদেশের। শরিফুলের মতে, বিপিএলের ভালো পারফরমেন্সই হবে আসন্ন ম্যাচগুলোতে সাফল্যের মূল চাবিকাঠি।
তাসকিন আহমেদ এবং এবাদত হোসেনের অনুপস্থিতিতে গেল বছর সফলভাবে বাংলাদেশ বোলিং আক্রমণের নেতৃত্ব দেওয়া শরিফুল আজ সাংবাদিকদের বলেন, ‘গত বছর, বিশেষ করে শেষ ছয়-সাত মাস আমার ভালো কেটেছে। এবারের বিপিএল দিয়ে ক্রিকেটে ফিরবো। আমার গেল বছরের ফর্ম এই টুর্নামেন্টে ধরে রাখার চেষ্টা করবো।’
শরিফুল জানান, আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপকে মাথায় রেখেই বিপিএল খেলতে চান।
তিনি বলেন, ‘কোন সন্দেহ নেই যে, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ সামনে থাকায় বিপিএল অনেক সাহায্য করবে। এটা আমাদের প্রধান টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট। এখানে ভালো পারফর্ম করে সবার নজর কাড়তে চাই। আমি মনে করি এই টুর্নামেন্টটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রস্তুতিতে আমাদের সহায়তা করবে।’
১৪টি টেস্ট, কয়েকটি দ্বিপাক্ষিক সিরিজ এবং টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের কারনে ব্যস্ত সূচি থাকায় পেসারদের কাজের চাপ ফুটে উঠেছে। গত বছর তাসকিন এবং এবাদতের অনুপস্থিতিতে বিশাল চাপ সামলাতে হয়েছিলো শরিফুলকে। অনেকের মতে,আগামীতে তার ইনজুরি সম্ভাবনাকে বাড়িয়ে দিতে পারে।
দেশের হয়ে খেলার জন্য নিজেকে ফিট রাখতে যথাসাধ্য চেষ্টা করবেন বলে জানিয়েছেন শরিফুল।
তিনি বলেন, ‘যতটা ফিট থেকে খেলা যায়, সেই চেষ্টা থাকবে। সামনে ব্যস্ত আন্তর্জাতিক সূচি আছে, দেশের হয়ে খেলাই আমার লক্ষ্য।’
জাতীয় দলের সতীর্থ তাসকিন আহমেদের সাথে বিপিএলে দুরন্ত ঢাকার হয়ে খেলবেন শরিফুল। এই দুই পেসারই প্রতিপক্ষের মাথা ব্যথার কারন হবেন বলে ধারনা করা হচ্ছে।
শরিফুল বলেন, ‘আমাদের প্রথম লক্ষ্য প্লে অফে খেলা। যদি এটা করতে পারি, তাহলে আমরা ফাইনাল খেলার চেষ্টা করবো। আমার মতো আমাদের ভালো কিছু স্থানীয় খেলোয়াড় আছে, যেমন- মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, তাসকিন আহমেদ, ইরফান শুক্কুর, সাইফ হাসান, নাইম শেখ। আমরা স্থানীয় খেলোয়াড়রা যদি ভালো করি এবং কিছু ম্যাচ জেতানো পারফরমেন্স করি, তাহলে এটি দলের জন্যই ভালো হবে।’
বিডিসংবাদ/এএইচএস