জার্মান ফুটবল উন্নয়নে নতুন ‘টাস্কফোর্স’ গঠন

বিডিসংবাদ অনলাইন ডেস্কঃ

বিশ্বকাপ ব্যর্থতার পর জার্মান ফুটবলকে ঢেলে সাজাতে টাস্কফোর্স গঠন করেছে জার্মান ফুটবল ফেডারেশন। আনুষ্ঠানিকভাবে এই টাস্কফোর্সের ঘোষণা দিয়েছেন ডিএফবি (জার্মান ফুটবল এসোসিয়েশন) প্রেসিডেন্ট বার্ন্ড নুয়েনডর্ফ।

অলিভার কান, কার্ল হেইঞ্জ রুমিনিগে, ম্যাথিয়াস সামার, রুডি ভোলার এবং অলিভার মিন্টজলাফকে নিয়ে গঠন করা হয়েছে এই টাস্কফোর্স। এই দলটির মূল উদ্দেশ্য হবে ২০২৪ ইউরো পর্যন্ত জার্মানি জাতীয় দলের বর্তমান কোচ হান্সি ফ্লিককে বিভিন্ন বিষয়ে উপদেশ ও পরামর্শ প্রদান এবং সার্বিক সহযোগিতা করা।

২০১৪ বিশ্বকাপজয়ের পর থেকে জার্মানির সেই বিধ্বংসী রূপটি যেন কোথায় হারিয়ে গেছে। তারই প্রমাণ দেখা গিয়েছে ২০১৮ ও ২০২২ সালের বিশ্বকাপে। পরপর দুই বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নিয়েছে জার্মানি। দলটির ফুটবল ইতিহাসে এর আগে কখনো এমন ঘটনা ঘটেনি। একের পর এক তারকা ও অভিজ্ঞ খেলোয়াড়দের অবসরের ফলও ভুগতে শুরু করে জার্মানি।

ক্রীড় বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কিছু খেলোয়াড়দের বাড়তি বয়স ও পড়তি ফর্মও জার্মানির ভরাডুবির কারণ। সেই তুলনায় আগের মত প্রতিভাবান খেলোয়াড় বের করে আনতে পারছে না দেশটি। জার্মানির বিরুদ্ধে সবচেয়ে বড় অভিযোগের একটি, এখনো পর্যন্ত মিরোস্লাভ ক্লোসার যোগ্য উত্তরসূরি খুঁজে বের করতে পারেনি তারা। ফলে একজন নম্বর নাইন বা ভালোমানের স্ট্রাইকার খুঁজে বের করা এখন সময়ের দাবি।

পরিসংখ্যন বলছে, ২০১৪ বিশ্বকাপের পরে তিনটি মেজর ইন্টারন্যাশনাল টুর্নামেন্টের ১১টি ম্যাচের ভেতর কেবল ৩টি ম্যাচ জিতেছে দলটি। যা নিঃসন্দেহে জার্মানের মতো দলের জন্য লজ্জাজনক। এদিকে ২০২২ বিশ্বকাপে জার্মানি আশানুরূপ ফলাফল না আনতে পারলেও হান্সি ফ্লিককেই ২০২৪ ইউরো পর্যন্ত কোচ হিসেবে বহাল রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বোর্ড।

যদিও বোর্ডের টেকনিক্যাল ডিরেক্টর অলিভিয়ের বিয়েরহফ পদত্যাগ করেছেন আগেই। এখনো পর্যন্ত তার স্থলাভিষিক্ত হননি কেউই। তাছাড়া দলটির ৩৬ বছর বয়সী অধিনায়ক ও গোলকিপার ম্যানুয়াল নয়্যার স্কিইং করতে গিয়ে পা ভেঙে পুরো মৌসুমের জন্য ছিটকে গেছেন। বিশ্বকাপের আগেই ইনজুরিতে পড়েছেন দলের আরেক ফরোয়ার্ড টিমো ভার্নার।

এরকম দিশেহারা অবস্থায় থাকা দলটিকে সঠিক নির্দেশনা দিতে ও বর্তমান কোচকে সর্বোচ্চ সহযোগিতা দিতে তাই এবার বিশেষ উদ্দেশ্যেই গঠন করা হল এই টাস্কফোর্স। নতুন উদ্ভাবনী ও সৃজনশীল আইডিয়া দিয়ে দলকে এগিয়ে নিতে তারা ভূমিকা রাখবেন বলে প্রত্যাশা করছেন দেশটির ফুটবল সমথর্করা।

জানা গেছে, ২০২৪ সালের জার্মানির ঘরের মাঠে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ইউরো। ইউরো ২০২৪ আয়োজনকে মাথায় রেখে নানারকম পরিকল্পনা করছে ডিএফবি। অভিজ্ঞ খেলোয়াড় ও সংগঠকদের নিয়ে তৈরি এই টাস্কফোর্স জার্মান ফুটলের দৃশ্যপটে কতটা পরিবর্তন আনতে পারবে, সে প্রশ্নের উত্তর এখন সময়ের হাতেই ছেড়ে দিতে হবে।

বিডিসংবাদ/এএইচএস