জেরুসালেমের পবিত্র স্থানগুলোর স্থিতাবস্থা বজায় রাখা উচিত : জাতিসঙ্ঘ মহাসচিব

বিডিসংবাদ অনলাইন ডেস্কঃ

জাতিসঙ্ঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস জেরুসালেমের পবিত্র স্থানগুলোর স্থিতাবস্থা রক্ষা এবং ফিলিস্তিন-ইসরাইল সমস্যার দ্বি-রাষ্ট্র সমাধানের জন্য আহ্বান জানিয়েছেন।

গুতেরেস বলেন, ‘আমি আবারো উল্লেখ করছি যে আমাদের অবশ্যই জেরুসালেমের পবিত্র স্থানগুলোর স্থিতাবস্থা বজায় রাখতে হবে এবং দ্বি-রাষ্ট্রীয় সমাধানকে ঝুঁকিতে ফেলতে পারে এমন কোনো উদ্যোগ এড়িয়ে দ্বি-রাষ্ট্রীয় সমাধান ব্যবস্থা রক্ষা করা অপরিহার্য।’

বৃহস্পতিবার নিউইয়র্কে জাতিসঙ্ঘ সদর দফতরে আরব গ্রুপের বর্ধিত ট্রোইকার স্থায়ী প্রতিনিধিদের সাথে বৈঠকের পর সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

গত সপ্তাহে, ইসরাইলের জাতীয় নিরাপত্তা মন্ত্রী ইতামার বেন-গাভির পূর্ব জেরুসালেমের ফ্ল্যাশপয়েন্ট পবিত্র স্থান আল-আকসা মসজিদ প্রাঙ্গণ পরিদর্শন করেছেন, ফিলিস্তিনি পক্ষ এ ঘটনাকে উস্কানি হিসাবে নিন্দা জানিয়েছে।

ইহুদিদের কাছে টেম্পল মাউন্ট নামে পরিচিত প্রাঙ্গণটি মুসলিম ও ইহুদি উভয়ের কাছেই পবিত্র।

গুতেরেস বলেন, জাতিসঙ্ঘ ‘ইসরাইলের অস্তিত্ব এবং নিরাপত্তায় বসবাসের অধিকারকে স্বীকৃতি দিয়েছে। একইসাথে বসতি নির্মাণ, উচ্ছেদ, বাড়িঘর ধ্বংস শুধুমাত্র ফিলিস্তিনি জনগণের মধ্যেই নয়, অন্যদের মধ্যেও বিশাল ক্ষোভ ও হতাশার সৃষ্টি করছে।’

দ্বি-রাষ্ট্র সমাধানের বিষয়ে একটি ফলো-আপ প্রশ্নের জবাবে গুতেরেস বলেছিলেন, ‘আমি যা বিশ্বাস করি তা হলো এ ক্ষেত্রে কোনো বিকল্প নেই, দ্বি-রাষ্ট্রীয় সমাধানের সম্ভাবনাকে প্রত্যাখ্যান করা এমন কিছু যা চিরকালের জন্য মধ্যপ্রাচ্যে শান্তির সম্ভাবনাকে ক্ষুণ্ণ করবে।’

গুতেরেস গত ডিসেম্বরে বলেছিলেন, জাতিসঙ্ঘ ‘দুটি রাষ্ট্র – ইসরাইল ও ফিলিস্তিন – উভয় রাষ্ট্রের রাজধানী জেরুসালেমসহ শান্তি ও নিরাপত্তার পাশাপাশি বসবাসের দৃষ্টিভঙ্গি বাস্তবায়নে আমাদের প্রতিশ্রুতিতে অটল।’

ফিলিস্তিনিরা ১৯৬৭ সালে ইসরাইল কর্তৃক দখলকৃত পশ্চিম তীর, গাজা উপত্যকা ও পূর্ব জেরুসালেম নিয়ে, পূর্ব জেরুসালেমকে রাজধানী করে একটি ফিলিস্তিন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করতে চায়। ইসরাইল জোর দিয়ে বলছে, শহরটি তাদের রাজধানী।

সূত্র : বাসস

বিডিসংবাদ/এএইচএস

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here