টাইম ম্যাগাজিনের বর্ষসেরা খেলোয়াড় মেসি

যুক্তরাষ্ট্রের জনপ্রিয় সাময়িকী টাইম ম্যাগাজিনের বিবেচনায় ২০২৩ সালের বর্ষসেরা খেলোয়াড় মনোনীত হয়েছেন লিওনেল মেসি। দুর্দান্ত এক মৌসুম কাটানোর পর সম্প্রতি ক্যারিয়ারের অষ্টম ব্যালন ডি’অর জয় করেছেন মেসি।
পিএসজি ছেড়ে এবারের মৌসুমে মেজর লিগ সকার ক্লাব ইন্টার মিয়ামিতে যোগ দিয়ে হইচই ফেলে দিয়েছেন আর্জেন্টাইন এই সুপারস্টার। বিশ্বকাপ জয়ী এই তারকাকে পেয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ক্রীড়াঙ্গনে অভাবনীয় প্রভাব পড়ায় টাইম তাকে স্বীকৃতি দিয়েছে। প্রথম ফুটবলার হিসেবে এই পুরস্কার পেলেন মেসি।
এ প্রসঙ্গে টাইম বলেছে, ‘লিওনেল মেসি এ বছর এখানে এসে যা করেছে যা একসময় অসম্ভব ছিল। যখন সে ইন্টার মিয়ামির হয়ে চুক্তিতে স্বাক্ষর করলো তখনই পুরো যুক্তরাষ্ট্র ফুটবল জাতিতে পরিণত হয়ে গেল।’
৩৬ বছর বয়সী মেসির জুলাইয়ে মিয়ামির হয়ে অভিষেক হয়। এমএলএস’এ খেলার লক্ষ্যে মেসি সৌদি আরবের লোভনীয় প্রস্তাবকেও প্রত্যাখান করেছেন। তিনি আসার পর থেকে মিয়ামির ভাগ্য ঘুড়ে যায়। বর্ধিত লিগ কাপে মিয়ামির শিরোপা জয়ের পিছনে আট বারের ব্যালন ডি’অর বিজয়ীর গুরুত্বপূর্ণ অবদান ছিল। এমএলএস ও মেক্সিকোর শীর্ষ দলগুলোকে নিয়ে এবারই প্রথমবারের মত মূল মৌসুমের মাঝে ক্রস-বর্ডার এই টুর্নামেন্ট আয়োজিত হয়েছে।
মিয়ামিতে এসে সব ধরনের প্রতিযোগিতায় মেসি ১৪ ম্যাচে এ ১১ গোল করেছেন। কিন্তু মৌসুমের শেষে ইনজুরির কারনে মিয়ামিকে প্লে-অফে খেলার সুযোগ করে দিতে পারেননি।
টাইম ২০১৯ সাল থেকে ‘অ্যাথলেট অব দ্য ইয়ার’ পুরস্কার দিয়ে আসছে। সে বছর সম্মানসূচক এ পুরস্কার পেয়েছিল যুক্তরাষ্ট্রের নারী ফুটবল দল। পরের বছর পুরস্কারটি পেয়েছেন বাস্কেটবল তারকা লেব্রন জেমস। ২০২১ সালে পেয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের জিমন্যাস্ট সিমোন বাইলস। গত বছর এ পুরস্কার জেতেন নিউইয়র্ক ইয়াঙ্কির বেসবল তারকা অ্যারন জাজ। আর এবার প্রথম কোন ফুটবলার হিসেবে একই শিরোপা উঠল মেসির হাতে।
বিশ্বকাপ জয়ের পর নিজেকে ব্যস্ত সূচী থেকে বের করে এনে অনেকটাই নির্ভার ভাবে ফুটবল খেলাকে উপভোগ করার নিমিত্তে মেসি পরিবারসহ যুক্তরাষ্ট্রে এসেছিলেন। পিএসজি ছাড়ার পর মেসির সামনে বেশ কিছু প্রস্তাব ছিল। এ ব্যপারে তিনি অনেক চিন্তাও করেছেন। বিশেষ করে মৌসুমের শেষে বেশ কয়েকজন তারকা খেলোয়াড় সৌদি প্রো লিগে যোগ দেবার পর মেসির সামনে সবকিছুই চিন্তার বিষয় হয়ে দাঁড়ায়। সৌদি আরব ও এমএলস, উভয় প্রস্তাবই মেসিকে আকৃষ্ট করেছিল।
আর্জেন্টিনার সংবাদমাধ্যম ‘মুন্দো আলবিসেলেস্তে’ টাইমকে বলা মেসির কথা আরও বিস্তারিত বর্ণনা দিয়েছে, ‘সবার আগে বার্সেলোনায় ফেরার কথা ভেবেছিলাম। কিন্তু সেটা সম্ভব হয়নি। এটাও সত্য যে সৌদি আরবে ফেরার কথাও ভেবেছি শেষ দিকে। তারা প্রতিদ্বন্দ্বীতাামূলক লিগ বানিয়েছে, যেটা ভবিষ্যতে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠবে। দেশটির পর্যটনদূত হিসেবে আমাকে ব্যাপারটি টেনেছিল। আর সেখানে যা যা দেখেছি, ভালোও লেগেছিল। সৌদি আরব ও এমএলএস- দুটি জায়গাই খুব আগ্রহোদ্দীপক ছিল আমার জন্য।’

বিডিসংবাদ/এএইচএস