টেকনাফে কোটি টাকা দামের অবৈধ দুটি ট্রলার জব্দ

কক্সবাজার প্রতিনিধিঃ  কক্সবাজারের টেকনাফ বাহারছড়া ইউনিয়নের মনখালী খাল থেকে নির্মাণাধীন দুটি অবৈধ ফিশিং ট্রলার জব্দ করেছে বনবিভাগ। দক্ষিণ বন বিভাগীয় বন কর্মকর্তার নেতৃত্বে বুধবার দুপুর ২টার দিকে এ অভিযান চালানো হয়। চোরাই কাঠ দিয়ে সম্পূর্ণ অবৈধ ভাবে নতুন নির্মিত একটি ট্রলারের মালিক টেকনাফ উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মৌলভী রফিক উদ্দিন বলে জানিয়েছেন বনকর্মীরা। জব্দ ট্রলার দুটির মুল্য আনুমানিক কোটি টাকা বলে জানা গেছে।

টেকনাফ হোয়াইক্যং রেঞ্জ কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মোঃ ইব্রাহিম হোসেন জানান, বুধবার দুপুর ২টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিভাগীয় বনকর্মকর্তা মোঃ আলী কবিরের নেতৃর্ত্বে একদল বনকর্মী টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর মনখালি খালের পাড়ে চিতাখলা নামক এলাকায় অভিযান চালান। মনখালী খালের পাড়ে চোরাই কাঠ দিয়ে নতুন নির্মানাধীন দুটি কাঠের ট্রলার জব্দ করেন। আটককৃত কাঠের ট্রলার দুটির মুল্য আনুমানিক কোটি টাকা। একটি সম্পূর্ণ নতুন নির্মাণাধী ও অপরটি পুরাতন মেরামতকৃত।

জানা গেছে, কক্সবাজার দক্ষিণ বনবিভাগের আওতাধীন হোয়াইক্যং রেঞ্জের টেকনাফ শীলখালী, জাহাজপুরা ও মাথাভাঙ্গা সহ বিভিন্ন স্থান থেকে মাদার ট্রি গর্জন নিধন করে নদীকুলবর্তী এলাকায় চোরাই কাঠ দিয়ে ফিশিং ট্রলার নির্মাণ করে আসছিল স্থানীয় চক্র।

কক্সবাজার দক্ষিণ বনবিভাগের বিভাগীয় বনকর্মকর্তা মোঃ আলী কবির জানান, চোরাই কাঠ দিয়ে নির্মাণাধীন নতুন ট্রলারটির মালিক টেকনাফ উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মৌলভী রফিক উদ্দিন। অপর পুরাতন ট্রলারটির মালিক সনাক্ত করা যায়নি।
তিনি আরো জানান, অবৈধ কাঠ দিয়ে নির্মাণাধীন ট্রলার বন হেফাজতে আনা হয়েছে এবং এব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।