দিনব্যাপী নির্বাচনী প্রচারণায় রংপুরে প্রধানমন্ত্রী

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ সকালে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তাঁর দলের প্রচারণার অংশ হিসেবে বাংলাদেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় বিভাগ রংপুরে পৌঁছেছেন।
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছোট মেয়ে এবং প্রধানমন্ত্রীর ছোট বোন শেখ রেহানাও তাঁর সঙ্গে রয়েছেন।
দিনব্যাপী সফরে মিঠাপুকুর ও তারাগঞ্জ উপজেলায় দু’টি জনসভার পাশাপাশি বিকেলে পীরগঞ্জ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এক বিশাল নির্বাচনী জনসভায় ভাষণ দেবেন আওয়ামী লীগ সভাপতি।
প্রধানমন্ত্রী তাঁর সফরকালে পীরগঞ্জের লালদীঘি ফতেহপুরে অবস্থিত তাঁর বাসভবনে পরিবারের সদস্যদের সাথে দেখা করবেন এবং আত্মীয় স্বজনদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময়ের পাশাপাশি তাঁর স্বামী ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়ার কবর জিয়ারত করবেন।
প্রধানমন্ত্রী সকাল ১১টার দিকে একটি বাণিজ্যিক ফ্লাইটে সৈয়দপুর বিমানবন্দরে অবতরণ করেন এবং তারপর সড়কপথে তারাগঞ্জের উদ্দেশ্যে যাত্রা করেন।
মাজার জিয়ারতের ঐতিহ্য মেনে হযরত শাহজালাল (রহ.) ও হযরত শাহ পরান (রহ.) এর মাজার জিয়ারতের মাধ্যমে সিলেট-১ আসন থেকে তাঁর দলের নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি।
এছাড়া ২৩ ডিসেম্বর তিনি ভার্চুয়ালি ছয়টি জেলায় নির্বাচনী জনসভা করেছেন। কুষ্টিয়ার পাবলিক লাইব্রেরি মাঠ, ঝিনাইদহে উজির আলী স্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠ, সাতক্ষীরার সাতক্ষীরা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, নেত্রকোনার জেলা স্টেডিয়াম এবং রাঙ্গামাটি জেলার শেখ রাসেল স্টেডিয়ামে এই জনসভা অনুষ্ঠিত হয়। পাশাপাশি বরগুনা জেলার বামনা ও পাথরঘাটা উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয় থেকে ভার্চুয়াল সভায় যোগ দেয়।
২১ ডিসেম্বর, তিনি তেজগাঁওয়ে আওয়ামী লীগ কার্যালয় থেকে ভার্চুয়াল প্লাটফর্মের মাধ্যমে পাঁচটি জেলা পঞ্চগড়, লালমনিরহাট, নাটোর, পাবনা এবং খাগড়াছড়িতে নির্বাচনী জনসভাও করেন।

এরআগে গত ২২ ডিসেম্বর ২০১৮ পীরগঞ্জে একই মাঠে জনসভায় ভাষণ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
৩১ ডিসেম্বর, ২০১৩ তারিখে তিনি তরফমৌজা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে একটি পথসভা এবং লালদীঘির ফতেহপুর জয়সদনে দলীয় কর্মী সভায় যোগ দেন।
প্রধানমন্ত্রী ও পুত্রবধূর পীরগঞ্জ সফর উপলক্ষে সারা জেলার পাশাপাশি পীরগঞ্জের সর্বত্র বিরাজ করছে উৎসবের আমেজ।

বিডিসংবাদ/এএইচএস