দিনাজপুরে বন্ধুক যুদ্ধে মাদক ব্যবসায়ী গাল কাটা বাবু নিহত, ২ পুলিশ আহত

দিনাজপুর জেলা প্রতিনিধিঃ  দিনাজপুরের বিরলে পুলিশের সাথে বন্ধুকযুদ্ধে কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী গাল কাটা বাবু (৪২)নিহত হয়েছে।

এ সময় আহত হয়েছে,পুলিশের দু’সদস্য আরিফুল ও শহিদুল ইসলাম। তাদের ভর্তি করা হয়েছে দিনাজপুর এম.আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে।

নিহত মাদক ব্যবসায়ী গাল কাটা বাবু বিরল উপজেলার তেঘরা নারায়ণপুর গ্রামের মৃত আব্দুল ওহাবের ছেলে।

ঘটনাটি ঘটেছে,আজ রোববার ভোর সাড়ে ৩টায় দিনাজপুর-বিরল উপজেলা সড়কের ২ নং ফরক্কাবাদ ইউপি’র সাবদাপাড়া নার্সারী এলাকায়। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ টু-টু বোর রাইফেল সদৃশ্য একটি বন্ধুক,৪টি ককটেল,২টি সামুরাই ও ১৯৩ পিস ফেন্সিডিল উদ্ধার করেছে। তার বিরদ্বে ৯টি মামলা রয়েছে।

মোঃ মাহফুজ জামান আশরাফ  অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন)  জানান , দেশ ব্যাপী ১০ দিনের চলমান মাদক বিরোধী অভিযানের অংশ দিনাজপুরে ১ রমজান থেকে মাদক বিরোধী অভিযান শুরু হয়েছে। ফেন্সিডিলের চালান যাচ্ছে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিরল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী গাল কাটা বাবু ও তার সহযোগিতা পুলিশের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। এ সময় পুলিশ আত্ম রক্ষার্থে পাল্টা গুলি চালালে কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী গাল কাটা বাবু (৪০)নিহত হয় ।

মাদক ব্যবসায়ী মোঃ বাবু ওরফে গালকাটা বাবুর ছেলে আল আমিন দাবী করেন, তার পিতা এতিমধ্যে মাদক ব্যবসা ছেড়ে দিয়ে পুলিশেল কাছে আতœসমর্পন করেন। এর পর থেকে তিনি ধান চালের কারবার করে আসছিলেন। গত শুক্রবার রাতে তার পিতাকে তেঘরা নারায়রপুর হবিবর রহমান হাসকিং মিল থেকে পুরিশ তুলে নিয়ে যায়। এরপর তারা মাদক ব্যবসায়ী  মোঃ বাবু ওরফে গালকাটা বাবুর কোন খবর পাননি। গতকাল রবিবার সকালে তারা খবর পেয়ে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম  মেডিকেল জলেজ মর্গে গিয়ে লাশ শনাক্ত করেন।

মাদক ব্যবসায়ী গাল কাটা বাবু’র লাশ সুরত হাল শেষে ময়না তদন্তের জন্য দিনাজপুর এম.আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।