দেশ ও জাতি গঠনে শিক্ষার কোনো বিকল্প নেই : পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী

বিডিসংবাদ অনলাইন ডেস্কঃ

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং বলেছেন, দেশ ও জাতি গঠনে শিক্ষার কোনো বিকল্প নেই।
তিনি বুধবার বান্দরবান পার্বত্য জেলার সুয়ালকে একশ একর জায়গার ওপর নির্মিত দেশের প্রথম পাবলিক-প্রাইভেট-পার্টনারশিপ বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনসহ স্থায়ী ক্যাম্পাসের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন। পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের অর্থায়নে ১০ কোটি টাকা ব্যয়ে এই বিশ্ববিদ্যালয়টি নির্মাণ করা হয়েছে।
উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বান্দরবান বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর ড. এম. নুরুল ইসলাম, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান সুপ্রদীপ চাকমা, ভাইস চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদ, বান্দরবানের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ফজলুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. শাহ আলম, পৌর মেয়র মোহাম্মদ সামশুল ইসলাম, জেলা পরিষদের সদস্য লক্ষীপদ দাশ, বান্দরবান সরকারি কলেজের অধ্যপক প্রফেসর মো. নুরুল আবছার চৌধুরী, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড বান্দরবান ইউনিটের নির্বাহী প্রকৌশলী আবু বিন মোহাম্মদ ইয়াছির আরাফাতসহ সরকারী উর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।
পার্বত্য মন্ত্রী বলেন, ‘আমাদেরকে সুশিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে। কারণ, দেশ ও জাতি গঠনে শিক্ষার কোনো বিকল্প নেই। বর্তমান সরকার শিক্ষা ক্ষেত্রে খুবই আন্তরিক এবং সরকারের সদিচ্ছার কারণেই পার্বত্য এলাকার শিক্ষা ব্যবস্থার ব্যাপক উন্নয়ন সাধিত হচ্ছে।’
তিনি বলেন, ‘শুধু বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়ে সার্টিফিকেট অর্জন করলে হবে না। দেশের অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের মত আমাদেরকেও প্রতিযোগিতার ভিত্তিতে এগিয়ে যেতে হবে, যাতে করে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছেলে-মেয়েরাও সমাজ, দেশ ও জাতি গঠনে ভূমিকা রাখতে পারে।’
উল্লেখ্য, ২০১৯ সালে ৫৬ জন শিক্ষার্থী নিয়ে অস্থায়ী ক্যাম্পাসে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের যাত্রা শুরু হয়। বর্তমানে বাংলা, ইংরেজী, হোটেল ম্যানেজমেন্টসহ ৫টি বিষয়ে ৪ শতাধিক শিক্ষার্থী এ বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চ শিক্ষা গ্রহণ করছে। শুধু তাই নয়, দেশের প্রথম পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপ বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীদের জন্য রয়েছে ছাত্রাবাস, শেখ কামাল ইনকিউবেশন সেন্টার, মিনি স্টেডিয়াম বোটানিক্যাল গার্ডেন হোস্টেল সুবিধাসহ রয়েছে জোরদার নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

বিডিসংবাদ/এএইচএস