নরসিংদীতে বিএফএফ-সমকাল পঞ্চম জাতীয় স্কুল বিজ্ঞান বির্তক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

নরসিংদী প্রতিনিধিঃ নরসিংদীতে ‘তর্কে-বির্তকে বিজ্ঞান’ এ শ্লোগা’নকে সামনে রেখে বাংলাদেশ ফ্রিডম ফাউন্ডেশন (বিএফএফ) ও সমকাল’র যৌথ আয়োজনে আব্দুল কাদির মোল্লা সিটি কলেজ মিলনায়তনে পঞ্চম জাতীয় স্কুল বিজ্ঞান বির্তক  প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২০ এপ্রিল বৃহস্পতিবার দিনব্যাপী বিতর্ক প্রতিযোগিতায় শিবপুর শহীদ আসাদ কলেজিয়েট গালর্স

হাই স্কুল এণ্ড কলেজ দল চ্যাম্পিয়ন ও শিবপুর পাইলট মডেল  স্কুল দল রানার্স আপ হয়েছে। অনুষ্ঠানে বিজয়ী দলের  দলনেতা খন্দকার রিফাত তাসনিম নওরিন শ্রেষ্ট বক্তা হিসেবে নির্বাচিত হয়েছে।

প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীরা বির্তকের মাধ্যমে আধুনিক বিজ্ঞানের গুরুত্ব ও প্রয়োজনীতা উল্লেখ করে বিজ্ঞান প্রযুক্তির উৎকর্ষ সাধনের লক্ষ্যে ডিজিটাল বাংলাদেশকে এগিয়ে নেয়ার অঙ্গীকার করে। ডিজিটাল-বাংলাদেশ গঠনে বিজ্ঞান শিক্ষার কোন প্রকার বিকল্প নেই বলে তার্কিকরা যুক্তি-তর্কের মধ্যে উপস্থাপন করেন।
পূর্বঘোষিত সময়সূচি অনুযায়ি বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে সাড়ে ৯টার মধ্যে বিতার্কিকদের নিয়ে নিজ দায়িত্বে স্কুলের দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষক ও অভিভাকরা উপস্থিত হতে থাকেন আব্দুল কাদির মোল্লা সিটি কলেজ মিলনায়তনে। এর পর বিতার্কিকরা পর্যায়ক্রমে তাদের নাম, পিতা-মাতার ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নাম রেজিস্ট্রেশন করেন। সকাল ১০ টার মধ্যে প্রতিযোগিতার উদ্বোধক, বিচারক ও মডারেটররা এসে উপস্থিত হন।

অনুষ্ঠানে উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত থেকে উদ্বোধন করেন, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ শিবপুর শহীদ আসাদ কলেজিয়েট গালর্স হাই স্কুল এণ্ড  কলেজের অধ্যক্ষ আবুল হারিছ রিকাবদার।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, আবদুল কাদির মোল্লা সিটি কলেজের অধ্যক্ষ ড. মশিউর রহমান মৃধা। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, আব্দুল কাদির মোল্লা সিটি কলেজের উপাধ্যক্ষ মাহামুদুল হাসান রুমি,  জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা (মাধ্যমিক) এ.কে.এম শাহাজাহান প্রমুখ। দৈনিক সমকাল’র নরসিংদী জেলা প্রতিনিধি মো: নূরুল ইসলাম অনুষ্ঠানে সভাপত্বি করেন ।

প্রতিযোগিতার প্রথম রাউন্ডে ‘উপকরণের অভাব নয় বরং যোগ্য শিক্ষকের অভাবেই শিক্ষার্থীরা বিজ্ঞান বিমূখ হচ্ছে’ ও ‘বিজ্ঞান এবং প্রযুক্তির সঠিক ব্যবহারে আমরা আন্তরিক নই’। এ দু’টি বিষয়ে পক্ষে ও বিপক্ষে  ৬টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিতার্কিকরা অংশ নেয়। অংশ গ্রহণকারী প্রতিষ্ঠান গুলো হচ্ছে, নরসিংদী আইডিয়াল হাই স্কুল, শিবপুর শহীদ আসাদ কলেজিয়েট গালর্স স্কুল এণ্ড কলেজ, একদুয়ারিয়া উচ্চ বিদ্যালয়, বালুসাইর উচ্চ বিদ্যালয়, ব্রাহ্মন্দীা উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় ও শিবপুর পাইলট মডেল  স্কুল ।
অনুষ্ঠানে মডারেটর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন, আব্দুল কাদির মোল্লা সিটি কলেজের সহাকারী অধ্যাপক ফারুক হোসেন। প্রথম রাউন্ডের ৬ দল থেকে ৪ টি দল সেমিফাইনাল রাউন্ডে উত্তীর্ণ হয়। দল গুলো হচ্ছে, নরসিংদী আইডিয়াল হাই স্কুল, শিবপুর শহীদ আসাদ কলেজিয়েট গালর্স স্কুল এণ্ড কলেজ, বালুসাইর উচ্চ বিদ্যালয় ও শিবপুর পাইলট মডেল  স্কুল ।

সেমিফাইনাল রাউন্ডে ‘তথ্যপ্রযুক্তির অতিরিক্ত ব্যবহার শিক্ষার্থীদের পাঠ্যবইয়ে অনাগ্রহী করে তুলছেন।’ প্রথম সেমিফাইনালে পক্ষে বিপক্ষে এ বিষয়ে অংশ নেন শিবপুর শহীদ আসাদ কলেজিয়েট গালর্স স্কুল এ- কলেজ ও নরসিংদী আইডিয়াল হাই স্কুল এবং দ্বিতীয় সেমিফাইলে  বালুসাইর উচ্চ বিদ্যালয় ও শিবপুর পাইলট মডেল  স্কুল।
লটারির মাধ্যমে অংশগ্রহণকারী দলদের বিতর্ক বিষয় পক্ষ-বিপক্ষ নির্ধারিত করা হয়।

চুড়ান্ত রাউন্ডে ‘বিজ্ঞানমনস্কতাই পারে তরুন প্রজন্মকে জঙ্গিবাদ থেকে দূরে রাখতে’ এ বিষয়ে শিবপুর শহীদ আসাদ কলেজিয়েট গালর্স হাই স্কুল এণ্ড কলেজ দল ও শিবপুর পাইলট মডেল  স্কুল দল মুখোমুখি হয়। চুড়ান্ত রাউন্ডে প্রতিযোগী দল দু’টি একে অপরকে বিভিন্ন যুক্তি দিয়ে নিজেদের যোগ্যতা প্রমাণের চেষ্টা করেন। এই রাউন্ডে বিচারকদের রায়ে দলগতভাবে ৮৬ নম্বর পেয়ে শিবপুর শহীদ আসাদ কলেজিয়েট গালর্স স্কুল এণ্ড কলেজ দল চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জণ করে। অপরদিকে ৭২ নম্বর পেয়ে রানার্স আপ হন শিবপুর পাইলট মডেল  স্কুল দল । চ্যাম্পিয়ন দলের দল নেতা খন্দকার রিফাত তাসনিম নওরিন চুড়ান্ত পর্বে শ্রেষ্ঠ বক্তা নির্বাচিত হয়।

প্রতিযোগিতায় বিচারকের দায়িত্ব পালন করেন, আব্দুল কাদির মোল্লা সিটি কলেজের সিনিয়র প্রভাষক কামরুজ্জামান, মোশারফ হোসেন ও প্রভাষক ইয়াকুব আলী। প্রতিযোগিতা শেষে অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে নরসিংদী চেম্বার অব কমার্স এণ্ড ইন্ডাস্টিজ’র পরিচালক মো: আল-আমিন প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদলের মাঝে আনুষ্ঠানিকভাবে ক্রেষ্ট প্রদান করেন। এছাড়াও প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ কারীদল গুলোর তার্কিকদের মাঝে সনদপত্র প্রদান করেন।

বিতর্ক প্রতিযোগিতায় সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন, সমকাল সুহৃদ সামাবেশ’র সহ-সভাপতি সাংবাদিক মো: শাহাদাৎ হোসেন রাজু, সাধারণ সম্পাদক তৌকির আহম্মেদ, আনোয়ার হোসেন স্বপন, নাদিম মাহমুদ নয়ন, সাইফুল ইসলাম, আফজাল হোসেন রাসেল ও লতিফ আহম্মেদ প্রমুখ।