নরসিংদী জেলা কারাগারের দীর্ঘদিনের বেহাল দশায় বন্দিগন দুর্বিসহ জীবনযাপন করছে

নরসিংদী প্রতিনিধি: নরসিংদী জেলা কারাগারের দীর্ঘদিনের বেহাল দশার উন্নতি সাধিত হলেও বন্দিদের ধারন ক্ষমতাসহ খাবারের পরিমান বৃদ্ধির জন্য কর্তৃপক্ষের নিকট জেল সুপার আবেদন জানিয়েছেন। নরসিংদী জেলা কারাগারের সর্বোচ্চ ধারন ক্ষমতার অধিক কয়েদী বন্দিরা অতি কষ্টে মানবেতর জীবন-যাপন নির্বাহ করছে। এই কারাগারে ২শত ৪৪ জন বন্দি ধারন ক্ষমতা থাকলেও বর্তমানে এর চাইতে আরো চারগুন বেশি কয়েদি বন্দী অবস্থায় দুঃসহ জীবন-যাপন করছে।

নরসিংদী কারাগারে ৮ শত ৮০ জন বন্দি অবস্থান করায় বন্দীদের অবস্থা আজ বেহালদশায় পরিনত হয়েছে। কারাগারের ধারন ক্ষমতার অধিক ৮ শত ৪২ জন পুরষ কয়েদি, ৩৬ জন নারী কয়েদিসহ ২ জন ফাঁসির আসামী বন্দি অবস্থায় অতিকষ্টে জীবন ও জীবিকা নির্বাহ করছে। ১৯৮৮ সনের ১৩ জুলাই ঢাকা- সিলেট মহাসড়কের নরসিংদীর ভেলানগরে জেলা কারাগারাটি প্রতিষ্ঠা লাভ করে। কারাগারের অভ্যন্তরে বন্দিদের বসবাসের জন্য ৩টি পৃথক ভবন ছাড়াও রয়েছে কারাগার হাসপাতাল।

জেল সুপার মোঃ নজরুল ইসলাম বিগত সময়ের সার্বিক বেহালদশার সত্যতা স্বীকার করে জানান, বর্তমানে নরসিংদী কারাগারের বেহাল দশা দূরীকরন সাপেক্ষে বন্দিদের নিরাপদ বাসযোগ্য পরিবেশ সৃষ্টি করা হয়েছে। বিগত সময়ে কারাগার অভ্যন্তরে বিভিন্ন প্রকারের মাদকদ্রব্য প্রবেশের ঘটনাটি স্বীকার করে বন্দিদের সংশোধনাগার হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে তিনি দ্রুত কঠোর আইনী পদক্ষেপ নিশ্চিত করনের মাধ্যমে বর্তমানে কারাগারের বন্দিদের সুস্থ ও সুন্দর পরিবেশ বঝায় রাখতে সক্ষম হয়েছে। অপরদিকে তিনি সংশোধনাগারে বন্দিদের নিরাপদ খাবারের মান উন্নীত করতে সক্ষম হলেও সরকারের নির্ধারিত অপর্যাপ্ত খাবার পরিমান বৃদ্ধির জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট অনুরোধ জানিয়েছেন।