পাঁচ জন বিশিষ্ট নারী পাচ্ছেন বেগম রোকেয়া পদক

আর্থ-সামাজিক উন্নয়নসহ বিভিন্ন বিভিন্ন ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে এবার বেগম রোকেয়া পদক পাচ্ছেন পাঁচ জন বিশিষ্ট নারী।
আজ ঢাকায় বাংলাদেশ সচিবালয়ে তথ্য অধিদফতরের সম্মেলন কক্ষে মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা এক সংবাদ সম্মেলনে একথা জানান।
মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে আগামী ৯ ডিসেম্বর বেগম রোকেয়া দিবস ও বেগম রোকেয়া পদক ২০২৩ প্রদান উপলক্ষে এই আজ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব নাজমা মোবারেক, মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ফরিদা পারভীন, অতিরিক্ত সচিব মোঃ মুহিবুজ্জামান ও প্রধান তথ্য কর্মকর্তা মোঃ শাহেনুর মিয়া প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা বলেন, ডিসেম্বর মাস বিজয়ের মাস, আনন্দের মাস ও স্বজন হারানোর মাস। বাঙালির অবিসংবাদিত নেতা সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধ্বের মাধ্যমে ১৬ ডিসেম্বর আমরা বিজয় অর্জন করি। জাতির পিতার নির্দেশনা ও নেতৃত্বে দেশে নারীর ক্ষমতায়নের শুরু।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, নারীর শিক্ষা, আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন, অধিকার, ক্ষমতায়ন ও সমতাভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠায় বেগম রোকেয়া নারীর অগ্রযাত্রায় অন্তহীন প্রেরণার উৎস। পল্লী উন্নয়ন এবং নারী জাগরণে উদ্বুদ্ধকরণের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদান ও গৌরাবোজ্জ্বল ভূমিকা পালনের স্বীকৃতিস্বরূপ পাঁচ জন বিশিষ্ট নারীকে বেগম রোকেয়া পদক-২০২৩ প্রদানের লক্ষ্যে চূড়ান্তভাবে মনোনীত করা হয়েছে। পদক প্রাপ্ত ৫ জন বিশিষ্ট নারী ও তাদের অবদানের ক্ষেত্র হলো- নারী শিক্ষায় বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম নারী উপচার্য খালেদা একরাম, মরণোত্তর (ঢাকা জেলা), নারী অধিকার প্রতিষ্ঠায় ডাঃ হালিদা হানুম আখতার (রংপুর জেলা), নারীর আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে কামরুন্নেছা আশরাফ দিনা, মরণোত্তর (নেত্রকোনা জেলা), নারী জাগরণে উদ্বুদ্ধকরণে নিশাত মজুমদার (লক্ষীপুর জেলা) এবং পল্লী উন্নয়নে রনিতা বালা (ঠাকুরগাঁও জেলা)। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী ৯ ডিসেম্বর সকাল ১০ টায় ঢাকায় ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে বেগম রোকেয়া দিবস ও বেগম রোকেয়া পদক প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে পদক প্রাপ্তদের এই পদক প্রদান করবেন। পদক প্রাপ্তদের আঠারো ক্যারেট মানের পঁচিশ গ্রাম স্বর্ণ নির্মিত একটি পদক, পদকের রেপ্লিকা, প্রত্যেককে চার লাখ টাকার চেক ও সম্মাননাপত্র প্রদান করা হবে।
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, বেগম রোকেয়া দিবস উদযাপন উপলক্ষ্যে রাষ্ট্রপতি মো: সাহাবুদ্দিন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বাণীসহ বিশেষ ক্রোড়পত্র ও স্মরণিকা প্রকাশ করা হবে। বাংলাদেশ টেলিভিশন ও রেডিওতে নারীর অধিকার ও সমতা প্রতিষ্ঠায় বিশেষ আলোচনামালা প্রচার করা হবে। এছাড়া নারী শিক্ষা, নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠা ও সচেতনতা বৃদ্ধি করতে ব্যানার, ফেস্টুন, পোস্টার বিতরণ ও স্থাপন করা হবে।
বিডিসংবাদ/এএইচএস