প্রেমের জন্য লিঙ্গান্তর: হলেন পুরুষ, ছিলেন নারী!

বিডিসংবাদ অনলাইন ডেস্কঃ

প্রেমের জন্য মানুষ তো কতো কিছুই করে। কেউ ভোলে ধর্ম, কেউ ভোলে জাত; কেউ আবার দেয় সাত সমুদ্র পাড়ি। তবে প্রিয় মানুষকে কাছে পেতে আরও একটু বেশি পথই হেঁটেছেন ভারতের এক স্কুল শিক্ষক।

রাজস্থানের স্কুল শিক্ষক মিরা নারী থেকে পুরুষ হয়েছেন কেবল প্রেমের টানে এবং তিনি তার ছাত্রীকে বিয়েও করেছেন গত রবিবার (৬ নভেম্বর)।

ভারাতপুর স্কুলের শারিরীক শিক্ষার শিক্ষক মিরা। স্কুলেই তিনি কল্পনা ফৌজদার নামের এক ছাত্রীর প্রেমে পড়েন। আর সেই প্রেমকে পরিণয়ে রূপ দিতেই অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে লিঙ্গান্তর করেছেন।
মিরা পুরুষে রূপান্তরের পর এখন তার নাম আরাভ কুন্তাল। তিনি বলেন, ‘ভালোবাসায় সবকিছুই ঠিক আর সেকারণেই আমি আমার লিঙ্গ পরিবর্তন করেছি।’

শারিরীক শিক্ষা ক্লাসেই কল্পনার সাথে মিরার (আরাভ) পরিচয়। কল্পনা রাজ্য পর্যায়ে কাবাডি খেলেন এবং আগামী জানুয়ারিতে তার দুবাইয়ে খেলতে যাওয়ার কথা রয়েছে।

আরাভ জানালেন, স্কুলের খেলার মাঠের যোগাযোগই কল্পনার সাথে তাকে ঘনিষ্ঠ করেছে। তবে তিনি নারী শরীর নিয়ে জন্মালেও মনে মনে পুরুষ হতে চাইতেন। তার ভাষায়, ‘আমি মেয়ে হয়ে জন্মেছি কিন্তু সব সময় নিজেকে ছেলে ভাবতাম। আমি সব সময় অস্ত্রোপচার করে নিজের লিঙ্গ পরিবর্তন করতে চাইতাম। আমি প্রথমবার ২০১৯ সালে অস্তোপচার করি।’

কল্পনাও জানালেন, তিনি আরাভকে অনেক ভালোবাসেন এবং আরাভ অস্ত্রোপচার করে লিঙ্গান্তর না করলেও তিনি তাকে বিয়ে করতেন।

কল্পনা বলেন, ‘আমি শুরু থেকেই তাকে ভালোবাসি। যদি সে সার্জারি নাও করতো, আমি তাকেই বিয়ে করতাম।

কল্পনা ও আরভের পরিবারও এই বিয়ে এবং তাদের সিদ্ধান্ত মেনে নিয়েছেন।

বিডিসংবাদ/এএইচএস