ফেনীতে ৭৪৫ নারী প্রশিক্ষণার্থীকে ল্যাপটপ তুলে দিলেন প্রতিমন্ত্রী পলক

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের অধীনে ‘হার পাওয়ার’ প্রকল্পে ফেনী, চাঁদপুর ও লক্ষীপুর জেলার ৭৪৫ জন নারী প্রশিক্ষণার্থীকে ল্যাপটপ বিতরণ করেছেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, এমপি।
আজ বুধবার দুপুরে শহরে পিটিআই মাঠে উক্ত প্রকল্পের ল্যাপটপ বিতরণ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ফেনী-১ আসনের সংসদ সদস্য আলাউদ্দিন আহম্মদ চৌধুরী নাসিম, ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারী।
স্বাগত বক্তব্য রাখেন- তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. মোস্তফা কামাল। জেলা প্রশাসক মুছাম্মৎ শাহীনা আক্তারের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন- পুলিশ সুপার জাকির হাসান, ই-ক্যাব প্রেসিডেন্ট শমী কায়সার।
প্রকল্প সূত্রে জানা গেছে, ফেনীর ২৪০জন ছাড়াও লক্ষ্মীপুরে ২৬৫ জনও চাঁদপুরে ২৪০ জন নারী ল্যাপটপ উপহার পেয়েছেন।
প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, প্রতিবছর ২০-২৫ লাখ তরুণ-তরুণী কর্মক্ষেত্রে প্রবেশ করছে। সবাইকে চাকরি দেওয়া সম্ভব নয়। সবাই প্রবাসে যেতে পারবে না। তাই ঘরে বসে সাবলম্বী হওয়ার ক্ষেত্র তৈরি করতে হবে। তাদের ওপর নির্ভর করছে স্মার্ট বাংলাদেশ। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বলতেন- নারীর ক্ষমতায়নে দরকার অর্থনৈতিক স্বচ্ছলতা।
পলক বলেন, একসময় দেশে যৌতুকপ্রথা ব্যাধি হয়ে উঠেছিল। ১৯৯৬ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার যুগান্তকারী সিদ্ধান্তে নারী শিক্ষার প্রসার, যৌতুক প্রথার বিরুদ্ধে সোচ্চার ভূমিকা তৈরি হয়। একসময় প্রাইমারি স্কুলে পুরুষ শিক্ষক ছিলেন। এখন ৬০শতাংশ নারী। প্রধানমন্ত্রীর অসংখ্য সিদ্ধান্তে নারীর ক্ষমতায়ন, কর্মক্ষেত্র তৈরি হয়েছে। ২০০৮ সালে ঘরে-ঘরে বিদ্যুৎ ছিল না। এখন শতভাগ বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত। ১৩ কোটি মানুষ ইন্টারনেটে যুক্ত। ১৫ বছর আগের চেয়ে বৈপ্লবিক পরিবর্তন হয়েছে। আইসিটি সেক্টরে ২০ লাখ কর্মসংস্থান হয়েছে।
ফেনী জেলায় ১১৪টি শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব রয়েছে। আরো ১০০টি ল্যাব তৈরির ঘোষণা দেন প্রতিমন্ত্রী পলক।
সংসদ সদস্য আলাউদ্দিন আহম্মদ চৌধুরী নাসিম বলেছেন, ২০০৯ সালে ডিজিটাল বাংলাদেশের ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তখন অনেকে হাস্যরস করেছেন। ১৫ বছর পর প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা করেছেন স্মার্ট বাংলাদেশ। স্বল্পমেয়াদী, মধ্যমেয়াদী ও দীর্ঘমেয়াদী ২০৪১ সাল পর্যন্ত পরিকল্পনা করেছেন। আজ একটা ল্যাপটপ একটা তরুণীকে মাথা উঁচু করে থাকার প্রেরণা যোগাবে। পৃথিবী অনেক দিক দিয়ে এগিয়েছে। তথ্য-প্রযুক্তিতে অন্য দেশের চেয়ে বাংলাদেশ পিছিয়ে নেই।
সংসদ সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারী বলেছেন, স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে স্মার্ট নাগরিক প্রয়োজন। পুরুষের পাশাপাশি নারীরাও পিছিয়ে নেই। আজ যারা ল্যাপটপ পাচ্ছেন তাদের অগ্রণী ভূমিকা রাখতে হবে।
অনুষ্ঠানে প্রশিক্ষণার্থীদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- ফেনীর চৈতি সাহা, লক্ষ্মীপুর জেলার ইসরাত জাহান তানজিনা, চাঁদপুর জেলার সাবিহা জামান।
অনুষ্ঠান শেষে প্রতিমন্ত্রী পলক পরশুরাম উপজেলায় আলাউদ্দিন আহমেদ নাসিম কলেজ সংলগ্ন শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং ও ইনকিউবেশন সেন্টার স্থাপনের নির্ধারিত জায়গা পরিদর্শন করেছেন।

বিডিসংবাদ/এএইচএস

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here