বালাকোট হামলার পর পরমাণবিক যুদ্ধের প্রস্তুতি নিচ্ছিল পাকিস্তান!

বিডিসংবাদ অনলাইন ডেস্কঃ

পাকিস্তানের খাইবার পাখতুন প্রদেশের বালাকোট শহরে ভারতের হামলার পর পরমাণবিক যুদ্ধের প্রস্তুতি নিচ্ছিল পাকিস্তান। এমনটাই দাবি করেছেন সাবেক মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও। মঙ্গলবার প্রকাশিত ‘নেভার গিভ অ্যান ইঞ্চি: ফাইটিং ফর দ্য আমেরিকা আই লাভ’ বইয়ে এমনটা দাবি করেন তিনি।

২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে বালাকোটে সামরিক হামলা চালায় ভারত। এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে পরমাণবিক যুদ্ধের প্রস্তুতি নিচ্ছিল পাকিস্তান। ভারতও পাল্টা প্রস্তুতি নিচ্ছিল। তৎকালীন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ এই কথা জানান বলে দাবি করেছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও।

যখন হামলার ওই ঘটনা ঘটে তখন ২৭-২৮ ফেব্রুয়ারি মার্কিন-উত্তর কোরিয়া শীর্ষ সম্মেলনের জন্য হ্যানয়ে ছিলেন মাইক পম্পেও। এই সঙ্কট এড়াতে নয়াদিল্লি এবং ইসলামাবাদের সাথে তার দল রাতারাতি কাজ করেছে।

পম্পেও লিখেছেন, ‘আমার মনে হয় বিশ্ব পুরোপুরি জানে না যে ভারত-পাকিস্তান ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে পারমাণবিক যুদ্ধের কতটা কাছাকাছি পৌঁছেছিল। সত্য হলো, আমিও আসলে এর উত্তর জানি না; আমি শুধু জানি খুব কাছাকাছি ছিল।’

সাবেক মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও

ভারত দাবি করে,ে পুলওয়ামা সন্ত্রাসী হামলায় ভারতের ৪০ জন সিআরপিএফ (সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্স) সদস্য নিহতের জেরে ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে পাকিস্তানের বালাকোটে জইশ-ই-মোহাম্মদ সন্ত্রাসী প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে বিমান হামলা চালিয়েছিল দেশটি। পাকিস্তান তাদের মাটিতে ওই ধরনের কোনো কেন্দ্র থাকার বিষয়টি অস্বীকার করেছে।

পম্পেও বলেন, ‘সেই রাতের কথা আমি কখনো ভুলব না। তখন ভিয়েতনামের হ্যানয়ে ছিলাম। পারমাণবিক অস্ত্র নিয়ে উত্তর কোরিয়ার সাথে আলোচনা যথেষ্ট ছিল না। কাশ্মির নিয়ে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে কয়েক দশক ধরে বিরোধ চলে আসছিল। তারা একে অপরকে হুমকি দিয়ে আসছিল।’

‘কাশ্মীরে স্বাধীনতাকামীদের হামলায় ৪০ জন ভারতীয় নিহত হয়েছিল। সম্ভবত পাকিস্তানের ঢিলেঢালা সন্ত্রাসবাদ নীতির কারণে এই ঘটনা ঘটেছিল। এ ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় পাকিস্তানে বিমান হামলা চালায় ভারত। পরবর্তী ডগফাইটে পাকিস্তান একটি বিমানকে গুলি করে ভূপাতিত করেছিল এবং ভারতীয় পাইলটকে বন্দী করে রেখেছিল।’

‘সে সময় হ্যানয়ে, আমি রাতে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে কথা বলছিলাম। তিনি ধারণা করছিলেন যে পাকিস্তান হামলার জন্য পারমাণবিক অস্ত্র তৈরি করতে শুরু করেছে। তিনি আমাকে জানিয়েছিলেন, ভারতও নিজস্ব প্রস্তুতি নেয়ার কথা ভাবছিল। আমি তাকে কিছু না করার জন্য বলেছিলাম এবং আমাদের কিছু সময় দিতে বলেছিলাম।’ পম্পেও তার বইতে এসব কথা লিখেছেন। এবং যেখানে তিনি ভুল করে সুষমা স্বরাজকে পুরুষ (হি) হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

৫৯ বছর বয়সী এই সাবেক মার্কিন কূটনীতিক তার বইয়ে লিখেছেন, ‘আমাদের কয়েক ঘণ্টা লেগেছে এবং আমাদের দলগুলো নয়াদিল্লি ও ইসলামাবাদে পৌঁছে উল্লেখযোগ্যভাবে ভালো কাজ করেছে। উভয় দেশকে বোঝাতে সক্ষম হয়েছি যে তাদের প্রতিপক্ষ পারমাণবিক যুদ্ধের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে না।’

তিনি বলেন, ‘সেই রাতে একটি ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি এড়াতে যা করেছি তা অন্য কোনো জাতি করতে পারত না।‘

সূত্র : সিয়াসাত

বিডিসংবাদ/এএইচএস

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here