সীমান্তে দুই কোরিয়ার সতর্কীকরণ গুলি বিনিময় ও উত্তেজনা

বিডিসংবাদ অনলাইন ডেস্কঃ

উত্তর এবং দক্ষিণ কোরিয়া পরস্পরের প্রতি সমুদ্রসীমায় সর্তকতামূলক গোলাবর্ষণ করেছে। দুই দেশ পশ্চিম উপকূলের ‘নর্দান লিমিট লাইন’ বরাবর এই গোলাবর্ষণ করে।

এ ঘটনার পর সোমবার দক্ষিণ কোরিয়ার সামরিক বাহিনী ঘোষণা করেছে, তারা তাদের পশ্চিম উপকূলের সমুদ্রে ‘শত্রুর উস্কানির প্রস্তুতিতে’ বৃহৎ মহড়া করবে।

দক্ষিণ কোরিয়ার সামরিক বাহিনীর চিফ অব স্টাফের অফিস এক বিবৃতিতে বলেছে তারা উত্তর কোরিয়ার উদ্দেশে সতর্কতামূলক বার্তা দিয়েছে এবং উত্তর কোরিয়াকে সতর্ক করে সমুদ্রের সীমান্ত রেখা বরাবর গোলাবর্ষণ করেছে।

এদিকে উত্তর কোরিয়া জানিয়েছে, দক্ষিণ কোরিয়ার একটি জাহাজ সমুদ্রের সীমারেখা লঙ্ঘন করার পর ১০ রাউন্ড গোলাবর্ষণ করা হয়।

উত্তর কোরিয়ার পিপলস আর্মির চিফ অফ স্টাফের মুখপাত্র বলেন, শত্রুর জাহাজকে তাড়িয়ে দেয়ার জন্য আমরা তাৎক্ষণিকভাবে সামরিক বাহিনীকে নির্দেশ দিই। ওই কর্মকর্তা দাবি করেন, তারা সীমান্তে শত্রু বাহিনীর অনুপ্রবেশের বিরুদ্ধে স্বাভাবিক তৎপরতা চালিয়েছেন।

এদিকে উত্তর কোরিয়ার এই তৎপরতাকে দক্ষিণ কোরিয়া বেআইনি বলে সমালোচনা করেছে। দক্ষিণ কোরিয়া বলছে, ২০১৮ সালে যে চুক্তি হয়েছিল উত্তর কোরিয়ার পদক্ষেপ তার লঙ্ঘন। ওই চুক্তিতে সীমান্তে শত্রুতামূলক তথ্যর তাছাড়া নিষিদ্ধ করা হয়।

বিডিসংবাদ/এএইচএস