হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে লুলা ডা সিলভা ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত

বিডিসংবাদ অনলাইন ডেস্কঃ

তিক্ত নির্বাচনী প্রচারণার পর হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে এক ঝাপটায় বর্তমান প্রেসিডেন্ট জাইর বোলসোনেরোকে হারিয়ে ব্রাজিলের পরবর্তী প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন চ্যালেঞ্জার লুইজ ইনাসিও লুলা ডা সিলভা। দেশটির নির্বাচন কর্তৃপক্ষের দেয়া তথ্য অনুযায়ী ডা সিলভা পেয়েছেন ৫০.৮ শতাংশ ভোট আর তার প্রতিপক্ষ বোলসোনেরো পেয়েছেন ৪৯.২ শতাংশ ভোট। খবর আলজাজিরার।

ফলাফলের পর সাওপাওলোর একটি হোটেলে সমবেত জনতার উদ্দেশ্যে ডা সিলভা বলেন, ‘আজকের এই বিজয় ব্রাজিলের জনগণের বিজয়। এটা আমার অথবা আমাদের দলের বিজয় নয়, অথবা আমাকে সমর্থন দেয়া অন্যান্য দলের বিজয় নয়। গণতন্ত্রকে বিজয়ী করতে রাজনৈতিক দল এবং ব্যক্তিগত স্বার্থ ও মতাদর্শের ঊর্ধ্বে ওঠে গণতান্ত্রিক আন্দোলনের পক্ষের জয় এটি।’

অর্ধেক ভোট গণনার পুরো সময়টা জুড়ে বোলসোনেরো এগিয়ে থাকলেও যখন ডা সিলভা তাকে পেছনে ফেলে এগিয়ে যান তখন থেকেই সাও পাওলোর রাস্তাগুলো লোকজনে পূর্ণ হতে শুরু করে। এসময় সমর্থকরা গাড়ির হর্ন বাজাতে থাকে।

এ বিষয়ে এক প্রতিক্রিয়ায় ৬৫ বছরের অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মচারি লুইজ কার্লোস গোমেজ বলেন, ‘এটা গরীবের জন্য বিশেষ করে গ্রামের মানুষের জন্য সবচেয়ে ভালো হয়েছে।’

এই নির্বাচন ছিল ১৯৮৫ সালে সামরিক শাসন থেকে গণতন্ত্রে উত্তরণের পর ব্রাজিলের ইতিহাসে একটি গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা। ডা সিলভা হচ্ছেন সেই সামরিক শাসন ও সেনাবাহিনীর সাবেক ক্যাপ্টেন বোলসোনেরোর বর্তমান সরকারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে অংশ নেয়া ব্যক্তি।

এই প্রথম ক্ষমতায় থেকে পুননির্বাচনে অংশ নেওয়া একজন প্রার্থী জয় লাভে ব্যর্থ হলেন। বিশ লাখ ভোট দুই প্রার্থীর মধ্যে ব্যবধানগড়ে দেয়। ২০১৪ সালের নির্বাচনে ভোটের ব্যবধান ছিল ৩৫ লাখ ভোট।

যদিও ব্রাজিলের ঐতিহ্য রয়েছে পরাজিত প্রার্থী প্রথমে নির্বাচনের ফলাফল মেনে নিয়ে কথা বলেন তবে নির্বাচন কর্তৃপক্ষ ডা সিলভাকে বিজয়ী ঘোষণা করার দুই ঘণ্টা পরেও বোলসোনেরো কোনো মন্তব্য করেননি। ৬৭ বছরের বোলসোনেরো এর আগে কোনো প্রমাণ তুলে না ধরে অভিযোগ করেছিলেন যে ভোট ব্যবস্থা জালিয়াতির ঝুঁকিতে রয়েছে।

এদিকে নির্বাচন কর্তৃপক্ষ নিরাপত্তা প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে যাতে বোলসোনেরোর সমর্থকরা কোনো ধরনের প্রতিবাদ বিক্ষোভের আয়োজন করলে তাদের দমিয়ে রাখা যায়।

২০২২ সালের এই নির্বাচনে ডা সিলভা আরও সামজিক ও পরিবেশগত দায়দায়িত্বের পক্ষে প্রচারণা চালান আর অন্যদিকে বোলসোনারো কোভিড অতিমারি ও আমাজনে বৃক্ষউজাড়ের মতো ঘটনার সাক্ষ্য বহন করে ডানপন্থি প্রচারণা চালান।

বিডিসংবাদ/এএইচএস