ড. তোফায়েলের কালিকা প্রসাদ স্মরণ(ভিডিও)

সেই ঢেউ ওপার বাংলার মতো যে বাংলাদেশে কতখানি তা অন্য সবার মত দেশের স্থানীয় সরকার বিশেষজ্ঞ ড. তোফায়েল আহমেদের কালিকা প্রসাদ স্মরণের মধ্য দিয়ে স্পষ্ট হয়ে ওঠে।

আহমেদ তেপান্তর: অতি সম্প্রতি দুর্ঘটনায় মারা গেছেন দুই বাংলার জনপ্রিয় লোকগানের সাধক, শিল্পী ও গবেষক কালিকা প্রসাদ ভট্টাচার্য। কিন্তু এই চলে যাওয়া মানে যে প্রস্থান নয় তা দুই বাংলার অজস্র ভক্তরা নানাভাবেই প্রমাণ করেছেন। জাগতিক সীমানা পেরিয়ে কালিকা লোকান্তরে কিন্তু তার অমর সৃষ্টি ধ্বনিত হচ্ছে লক্ষ-কোটি প্রাণে। সেই ঢেউ ওপার বাংলার মতো যে বাংলাদেশে কতখানি তা অন্য সবার মত দেশের স্থানীয় সরকার বিশেষজ্ঞ ড. তোফায়েল আহমেদের কালিকা প্রসাদ স্মরণের মধ্য দিয়ে স্পষ্ট হয়ে ওঠে। তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে লিখেছেন-

সারা বাংলার সকলের জন্য এক মহা মহা দুঃসংবাদ
বাংলার মরম মূলে মহা বজ্রপাত,
নেই নেই নেই আর, আমাদের প্রিয় কালিকা প্রসাদ।
সব বাউল লুটায় ধুলায়, সকল একতারার ছিঁড়ে গেল তার
সকল ঢোল হারাল বোল, বৃক্ষহীন ছায়াহীন অনাথ ‘দোহার’।
রাঢ় বাংলার আদিবাসী নারী ,ভাটি বাংলার জেলে-মাঝি-চাষী
নগর বাংলার শিল্পী-কবি সবার হৃদয় শোকস্তব্দ, ‘সবাই তোমায় ভালবাসি’।
চোখের জল শুকায় চোখে, শুধু অশ্রুধারার চিহ্ন থাকে আকাঁ,
বুকের ব্যাথা থাকবে বুকে,লোকগান যুগেযুগে,
বয়ে যাবে তোমার পতাকা।

প্রসঙ্গত, ভারতের পশ্চিমবঙ্গের হুগলিতে গত ৮ মার্চ সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেলেন লোকগানের সাধক, শিল্পী ও গবেষক কালিকা প্রসাদ ভট্টাচার্য। রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় তাঁর শেষ কৃত্য সম্পন্ন করা হয়। বাংলায় লোকগানের সুর তিনি ছড়িয়ে দিয়েছিলেন নাগরিক সীমানায়৷ শিল্পীর নিজস্ব লোকগানের দল বা ব্যান্ড ‘দোহার’ এখন পরিচিত নাম৷তার অকাল মৃত্যুর মদ্য দিয়ে সংস্কৃতির জগৎ হারাল নিষ্ঠাবান গবেষককে৷ সংগীত হারাল তার আর এক সাধককে৷