আশুলিয়া ও কুমিল্লায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৬

বৃহস্পতিবার সকাল ৮টার দিকে আশুলিয়ার মরাগাঙ এলাকায় আবদুল্লাহপুর-বাইপাইল মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এরআগে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লায় যাত্রীবাহী বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সঙ্গে ধাক্কা লেগে চালকসহ দুইজন নিহত হয়েছেন।

আগুলিয়ায় নিহতরা হলেন, ঈগল পরিবহনের চালক সদেশ বসু (৪০), তিনি যশোর মনিরামপুর এলাকার মৃত সুবল বসুর ছেলে। মরিয়ম (৪০), কুমিল্লার লাকসাম এলাকার আব্দুল মালেকের স্ত্রী। আব্বাস (১৪), খুলনার কালীনগর এলাকার আনসার আলীর ছেলে এবং আনন্দ পরিবহনের চালক মজিবুর রহমান (৩৫), বাড়ি আশুলিয়ার পাড়া গ্রামে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, সকালে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা আনন্দ সুপার পরিবহনের সঙ্গে মরাগাঙ এলাকায় ঢাকাগামী ঈগল পরিবহনের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

এতে ঘটনাস্থলেই তিনজন মারা যান। আহত অন্তত ২০ জনকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতাল ও ক্লিনিকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মজিবুর রহমানের মৃত্যু হয়।

দুর্ঘটনার পর সড়কে বেশ কয়েক ঘণ্টা যান চলাচল বন্ধ ছিল। এতে তীব্র যানজট দেখা দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশ উদ্ধার এবং যান চলাচল স্বাভাবিক করে বলে জানিয়েছেন টিআই জামাল উদ্দিন।

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লায় যাত্রীবাহী বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সঙ্গে ধাক্কা লেগে চালকসহ দুইজন নিহত হয়েছেন। এসময়  আহত হয়েছেন আরও অন্তত ২০ যাত্রী। বুধবার গভীর রাতে জেলার চান্দিনা উপজেলা সদরের পালকি সিনেমাহল সংলগ্ন হাজী টাওয়ারের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- চাঁদপুর জেলার হাইমচর উপজেলার দক্ষিণ আলগী গ্রামের বিল্লাল হোসেন ভুইয়া (৬০) ও একই উপজেলার উত্তর আলগী গ্রামের নুরুল আমীন ভইয়া (৪০)।

হাইওয়ে পুলিশ ইলিয়টগঞ্জ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই মনিরুল ইসলাম দুর্ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।