চলে গেলেন চিত্রসম্পাদক মল্লিক, সন্ধ্যায় জানাযা

শক্তিমান অভিনেতা রাইসুল ইসলাম আসাদ বলেন, ‘আমাদের সময় সবচেয়ে ভালো ছবির সবচেয়ে সৃজনশীল নিষ্ঠাবান চিত্র সম্পাদক হলেন মল্লিক ভাই।

জাঈনতাহুর সামস: অভিনেতা মিজু আহমেদ এবং পরিচালক ইবনে মিজানের পর এবার না ফেরার দেশে চলে গেলেন প্রখ্যাত চিত্রসম্পাদক আতিকুর রহমান মল্লিক (ইন্নাল্লিহে…রাজিউন)। আজ দুপুরে ঢাকার মোহাম্মদপুরস্থ নিজ বাসভবনে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

বৃহস্পতিবার মল্লিকের স্ত্রী শামীম আরা ডলি বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, সন্ধ্যায় লালমাটিয়া জামে মসজিদে তার জানাযা অনুষ্ঠিত হবে। এরপর আজিমপুরে তাকে দাফন করা হবে।

এদিকে আতিকুর রহমান মল্লিকের মৃত্যুতে চলচ্চিত্রাঙ্গনে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। শক্তিমান অভিনেতা রাইসুল ইসলাম আসাদ বলেন, ‘আমাদের সময় সবচেয়ে ভালো ছবির সবচেয়ে সৃজনশীল নিষ্ঠাবান চিত্র সম্পাদক হলেন মল্লিক ভাই। অপরদিকে বিখ্যাত পরিচালক আজিজুর রহমান বলেন, ‘আতিকুর রহমান মল্লিক বাংলাদেশের ক্লাসিক্যাল যে ছবিগুলো হয়েছে তা অনেকটাই ওর হাত ধরে পূর্ণতা পেয়েছে বলবো। যেমন এদেশের ক্ল্যাসাক্যিাল ও মুক্তিযুদ্ধভিত্তক বেশিরভাগ চলচ্চিত্রের চিত্র সম্পাদক মল্লিক। ও ব্যাপারগুলো বেশ বুঝতো। তাই এমন গুণীলোক চলে যাওয়া শূণ্যতা অবশ্যই তৈরি হলো।’

১৯৬৭ সালে চলচ্চিত্র সম্পাদনায় আসেন আতিকুর রহমান মল্লিক। আশি ও নব্বই দশকে অত্যন্ত ব্যস্ত সৃজনশীল চিত্রসম্পাদক ছিলেন তিনি। ১৯৮৮ সালে আব্দুল্লাহ আল মামুন পরিচালিত ‘দুই জীবন’সহ একাধিক ছবিতে সম্পাদনার জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান মল্লিক।

চিত্র সম্পাদক আলম কোরায়েশী, বড় ভাই ফাহিমউদ্দিন এরশাদের কাছ এবং শ্রদ্ধেয় বশির আহমেদের কাছে সবিশেষ ঋণী মল্লিক মৃত্যুরপূর্বে আহমেদ তেপান্তরের নেয়া সাক্ষাৎগ্রহণে এমনটাই ব্যক্ত করেছিলেন তিনি।

প্রচারবিমুখ আতিকুর রহমান মল্লিক- সেয়ানা, মেঘের অনেক রং, মনিহার, মাটির মানুষ, আশা, এতিম, রাজা সাহেব (যুগ্ম চিত্রনাট্যকারও), পুরস্কার, রূপালি সৈকত, নয়নের আলো, রাজলক্ষী শ্রীকান্ত, নরম গরম, আগুণের পরশমনি, চাঁদনী, শ্যামল ছায়া, মেঘের পর মেঘ, দেবদাস, শাস্তি, সুভা প্রভৃতি ছাড়াও ঋত্মিক ঘটকের ‘তিতাস একটি নদীর নাম’ এবং ‘ওরা ১১ জন’ চলচ্চিত্রে বশির আহমেদ অসুস্থাবস্থায় তিনি কাজ করেছেন। পেয়েছেন একাধিক জাতীয় চলচ্চিত্র, বাচসাস এবং প্রযোজক সমিতির পুরস্কার।

ময়মনসিংহ শহরে জন্ম নেয়া মল্লিক ব্যক্তিগত জীবনে ‍দুই ছেলের জনক। স্ত্রী শামীম আরা বেগম ডলি সাবেক রেডিও শিল্পী।